kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

ইউপি সদস্যের নামে কুরিয়ার

পার্সেল খুলতেই বেরিয়ে এলো চকচকে চায়নিজ কুড়াল!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ০৮:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পার্সেল খুলতেই বেরিয়ে এলো চকচকে চায়নিজ কুড়াল!

ইউপি সদস্য ছাইদার রহমান ও পার্সেলে পাঠানো চায়নিজ কুড়াল। ছবি: কালের কণ্ঠ

বগুড়ার শেরপুরে ইউপি সদস্যের নামে পাঠানো কুরিয়ারে মিলল চকচকে চাইনিজ কুড়াল। ঘটনাটি টক অব দ্যা টাউনে পরিনত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৬জানুয়ারি) সন্ধ্যায় উপজেলার শাহবন্দেগী ইউনিয়নের পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) ছাইদার রহমান সাকিবের নামে ‘রিডেক্স হোম ডেলিভারী সার্ভিস’ কুরিয়ারে এটি পাঠানো হয়। রাতেই ওই ইউপি সদস্য ধারালো অস্ত্রটি শেরপুর থানায় জমা দিয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি জিডি) করেন।

জিডি সূত্রে জানা যায়, ঢাকার গাজীপুর জেলার চল্লিশ নম্বর ওয়ার্ডের বড় বাজার (চামুদ্দা বাজার) থেকে ‘রিডেক্স হোম ডেলিভারী সার্ভিস’ কুরিয়ারে ওই পার্সেলটি ইউপি সদস্য ছাইদার রহমান সাকিবের ঠিকানায় বুকিং দেওয়া হয়। সেখানে তার মোবাইল নম্বরও দেওয়া হয়। সে অনুযায়ি আল আমিন নামের এক ব্যক্তি নিজেকে ওই কুরিয়ারের ডেলিভারিম্যান পরিচয় দিয়ে তার মোবাইল থেকে ইউপি সদস্যের মোবাইলে ফোন দিয়ে শেরপুর বাসস্ট্যান্ডে আসতে বলেন পার্সেল নেওয়ার জন্য। তবে তিনি কোনো পণ্যের পার্সেল অর্ডার করেননি বলে তাকে জানিয়ে দেন। এরপরও ওই ব্যক্তির একাধিকবার ফোনে ডাকার পর বাসস্ট্যান্ড এলাকার সাউদিয়া হোটেলের সামনে যান ইউপি সদস্য ছাইদার রহমান সাকিব। সেইসঙ্গে পার্সেলটি গ্রহণ করেন। কিন্তু পার্সেলের প্যাকেট খুলেই একটি চাইনিজ কুড়াল দেখে হতবিহবল হয়ে পড়েন।

ইউপি সদস্য ছাইদার রহমান সাকিব বলেন, 'আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রার্থী আমি। তাই নির্বাচন থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য আমাকে ভয়ভীতি দেখাতেই হয়তো এটি করা হয়ে থাকতে পারে। এছাড়া ষড়যন্ত্রমূলকভাবে আমাকে ফাঁসানোর টার্গেটও থাকতে পারে। যাতে করে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্ন করা সম্ভব হয়। আর এই কারণেই পুরো নাম ঠিকানা ও ব্যক্তিগত ফোন নম্বর সঠিকভাবেই পার্সেলের গায়ে লেখা রয়েছে।'

যারাই এই কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাক না কেন-তাদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার জন্য আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর কাছে জোর দাবি জানান তিনি।

জানতে চাইলে শেরপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদিকদের বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে ঘটনাটির রহস্য উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। অচিরেই এই ঘটনার রহস্য উন্মোচিত হবে। পাশাপাশি জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা