kalerkantho

শনিবার । ২১ ফাল্গুন ১৪২৭। ৬ মার্চ ২০২১। ২১ রজব ১৪৪২

সুনই বিলে মৎস্যজীবী হত্যার প্রতিবাদে বর্মণ ও ক্ষত্রিয় সম্প্রদায়ের মানববন্ধন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুনই বিলে মৎস্যজীবী হত্যার প্রতিবাদে বর্মণ ও ক্ষত্রিয় সম্প্রদায়ের মানববন্ধন

সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার সুনই জলমহালে মৎস্যজীবী শ্যামাচরণ বর্মণকে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় খুনিদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন সুনামগঞ্জ জেলার বর্মণ ও ক্ষত্রিয় সম্প্রদায়ের লোকজন। মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে তারা জেলা প্রশাসক বরাবরে বিচারের দাবিতে ও জলমহালে আহরণে নীতিমালা অনুযায়ী বর্মণ সম্প্রদায় কর্তৃক মৎস্য আহরণের দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। আজ রবিবার দুপুর ১২টায় সুনামগঞ্জ শহরের ট্রাফিক পয়েন্টে ক্ষত্রিয় বর্মণ সম্প্রদায়ের ইতিহাস অনুশীলন ও কল্যাণ পরিষদ এই কর্মসূচির আয়োজন করে। কর্মসূচিতে বর্মণ সম্প্রদায়ের কয়েকশ নারী-পুরুষ অংশ নেন। 

মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা অভিযোগ করেন, ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ জনপ্রতিনিধি ও তার ভাই বর্মণ সম্প্রদায়ের কাছ থেকে জলমহাল জোরপূর্বক দখল নিতে গত ২ জানুয়ারি সুনই জলমহালে মৎস্যজীবীদের খলাঘরে আগুন দেয় ও তাদেরকে মারাধর করে। এতে বাধা দিলে গলা কেটে মৎস্যজীবী শ্যামাচরণ বর্মণকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হলেও পুলিশ হত্যাকাণ্ডের শিকার পরিবারের মামলা না নিয়ে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করে। প্রশাসন যাতে আসামিদের আড়াল করে শ্যামাচরণ হত্যার মোড় অন্যদিকে না ঘুরিয়ে দেয় সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি কামনা করেন বর্মণ সম্প্রদায়ের লোকজন।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবতুষ রায় বর্মণ, বীরলাল বর্মণ, স্বপন বর্মণ, মনালা বর্মণ, সুধীরচন্দ্র বর্মণ, সঞ্জিত দাস প্রমুখ।

বক্তারা অবিলম্বে প্রকৃত খুনীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বৃদ্ধা নারী, তরুণী, গৃহিণী ও শিশুরাও অংশ নেন। তারা হাতে প্লেকার্ড নিয়ে বিচারের দাবি জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা