kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭। ২ মার্চ ২০২১। ১৭ রজব ১৪৪২

এক জালে ৬ লাখ টাকার মাছ! ভাগ্য খুলল রফিকুলের

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এক জালে ৬ লাখ টাকার মাছ! ভাগ্য খুলল রফিকুলের

কথায় আছে 'ভাগ্য খুলতে সময় লাগে না'। আসলেই তাই। এক মূহুর্তে বা একদিনের ব্যবধানে বদলে যেতে পারে অনেক কিছু। ঠিক যেমন বদলে গেছে সাতক্ষীরা শ্যমনগরের জেলে রফিকুলের জীবন। একদিনে জালে পাওয়া মূল্যবান লাউভোলা মাছ বিক্রি করেছেন পাঁচ লাখ ৪০ হাজার টাকায়। মাছ বিক্রির পর অনুভূতি ব্যক্ত করতে গিয়ে রফিকুল বলেন, 'এক সঙ্গে এ্যত্ত টাকার মাছ বেঁচতে পেরে ভাগ্য খুইলে গেছে।'

লাউভোলায় ভাগ্য বদল হওয়া জেলের নাম রফিকুল ইসলাম(৪৯)। তিনি শ্যামনগর উপকূলের টেংরাখালী গ্রামের বাসিন্দা। সুন্দরবন সংলগ্ন রায়মঙ্গল নদীতে জাল পেতে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন।

জেলে রফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে নদীতে জোয়ার আসে। সেই জোয়ারে তিনি জাল পাতেন। ভাটাটানে পানি থেকে জাল তোলা শুরু করলে উঠে আসে ১২৬টি লাউভোলা মাছ। এক একটি মাছের ওজন সাত থেকে ২০ কেজি পর্যন্ত। যার মোট ওজন প্রায় এক হাজার ৫১ কেজি। আজ শুক্রবার ৫৯০ টাকা কেজি দরে তিনি পাঁচ লাখ ৪০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন।

সামুদ্রিক মাছের মধ্যে লাউভোলা মাছ খেতে বেশ সুস্বাদু। স্বাদে গুনে তাই এই মাছের কদরও যেন একটু বেশী। চাহিদার কারণে স্বভাবিকভাবে দামও চড়া।

অন্যদিকে এর দাম বেশী হওয়ার মূল কারণ হলো এ মাছের ফুলকা ভারতসহ বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হয়। গ্রেড অনুযায়ী প্রতি কেজি লাউভোলা মাছের ফুলকার দাম ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। ভারতসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে লাউভোলা মাছের ফুলকা দিয়ে মূল্যবান প্রসাধনী ও জীবন রক্ষাকারী ওষুধ তৈরি হয়ে থাকে।

উপজেলার বংশীপুর গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী নূর হোসেন গাজী জানান, খবর পেয়ে তিনি মাছগুলো কিনে নেন। পরে তা স্থানীয় সোনার মোড়ের মদিনা ফিসের মালিক হারুনার রশিদের মৎস্য সেটে ছয় লাখ ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা