kalerkantho

শনিবার । ২১ ফাল্গুন ১৪২৭। ৬ মার্চ ২০২১। ২১ রজব ১৪৪২

লাইসেন্স, ডাক্তার, নার্স অনেক কিছুই নেই

বাগআঁচড়ায় তিন ক্লিনিক সিল করেছে যশোর স্বাস্থ্যবিভাগ

বেনাপোল প্রতিনিধি   

১৮ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাগআঁচড়ায় তিন ক্লিনিক সিল করেছে যশোর স্বাস্থ্যবিভাগ

লাইসেন্স, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, ডাক্তার, ডিপ্লোমা নার্সসহ অনেক কিছু না থাকায় যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া এলাকার ৩টি ক্লিনিক সিল করেছে যশোর স্বাস্থ্য বিভাগ। সোমবার যশোরের সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীনের নেতৃত্বে পরিদর্শন কার্যক্রমের সময় সিল করে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। ওই ৩টি প্রতিষ্ঠান দিনের পর দিন স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে অনিয়মতান্ত্রিকভাবে চলছিল। যশোরে স্বাস্থ্যসেবা সেক্টরে অনিয়ম অসঙ্গতি রুখতে এ অভিযান অব্যাহত রাখা হবে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডাক্তার শেখ আবু শাহীন।

যশোর সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানিয়েছে, সংঘবদ্ধ অসাধু চক্র যশোর শহরসহ উপজেলা ও ছোট বড় বাজার পর্যায়ে অনেক স্পটে অবৈধভাবে হাসপাতাল ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার চালিয়ে যাচ্ছে। অনেক প্রতিষ্ঠানকে দফায় দফায় সতর্ক করলেও তারা সতর্ক না হয়ে উল্টো রোগী সেবার নামে প্রতারণা অব্যাহত রাখে। স্বাস্থ্য বিভাগের কোনো অনুমোদন ছাড়াই শয্যা খোলা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমতি নেই, ডাক্তার নার্স নেই, এরপরও প্রতিদিন রোগী দেখা হচ্ছে, রোগী ভর্তি রাখা হচ্ছে, প্যাথলজিক্যাল নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।

এসব তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার বিকেলে শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়ায় অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় স্বাস্থ্যবিধির ব্যত্যয় ঘটিয়ে চলা জনসেবা ক্লিনিক, বাগআঁচড়া ক্লিনিক ও আল মদীনা ক্লিনিক বন্ধ ঘোষণা করা হয়। একই সঙ্গে তালাবদ্ধ করা হয় ওই তিনটি প্রাইভেট প্রতিষ্ঠান। এ সময় সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহিন ছাড়াও শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাক্তার ইউসুফ আলী, সিভিল সার্জন অফিসের মেডিক্যাল অফিসার ডাক্তার রেহনেওয়াজ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা আরিফুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন জানান, অনেক কিছুই নেই এর মধ্যে চলছিল ওই প্রতিষ্ঠান ৩টি। তাদেরকে বারবার নোটিশ করা হয়েছে কাগজপত্র হালনাগাদ করতে। কিন্তু প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ কিছুই করেনি। লাইসেন্স না থাকা, প্যাথলজি সমস্যা, ডাক্তার নার্স না থাকায় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা