kalerkantho

শনিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৪ রজব ১৪৪২

মুন্সীগঞ্জে অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন, ভাঙছে পাশের কৃষি জমি

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুন্সীগঞ্জে অবৈধ ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন, ভাঙছে পাশের কৃষি জমি

ফসলি জমি ভেঙে যাওয়ায় ক্ষতির শিকার হয়েছে বেশ কয়েকটি কৃষক পরিবার। বার বার বিভিন্ন মহলে অভিযোগ করেও তার কোনো সুরাহা পাচ্ছে না ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা। এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে লৌহজং উপজেলার খিদির পাড়া ইউনিয়নের বংখিরা গ্রামের মো. শরিফের বিরুদ্ধে। তার ছোট একটি কৃষি জমির বালু বিক্রি করে সেখানে ড্রেজার লাগিয়ে পরিমাণের চেয়ে গভীর খনক করে অতিরিক্ত বালু উত্তোলন করায় আশপাশের কৃষি জমি ও পুকুরের পাড় ভাঙনের শিকার হয়েছে।

আজ বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বংখিরা গ্রামের শরীফ মিয়া তার ছোট একটি কৃষি জমির বালু বিক্রি করলে তাতে ড্রেজার লাগিয়ে গভীর খনন করলে তার চারদিকে থাকা বেশ কয়েকটি জমি ও পুকুরের পাড় ভেঙে পড়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া পুকুরের মালিক মো. শহিদুল ইসলাম রনি জানান, শরীফের জমিটি বিলের মাঝ খানে হওয়ায় এবং তিনি জমি হতে অতিরিক্ত বালু উত্তোলন করায় আশপাশে থাকা বেশ কয়েকজন কৃষকের জমি ভেঙে পড়েছে। এর পাশাপাশি আমার একটি পুকুরের পাড় ভেঙে পড়েছে, ড্রেজারের মালিক শহীদকে বারবার বারণ করার পরও তারা বাধা মানছে না। খনন করা জমিটির পূর্ব পাশে মো. হেলাল শেখের কৃষি জমি, পশ্চিম পাশে আব্দুল হাকিমের কৃষি জমি, উত্তর পাশে মো. নুরু মুন্সির কৃষি জমি ও দক্ষিণ পাশে মো. শহীদুল ইসলাম রনির চারদিক পাড় বাঁধানো পুকুর রয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া কৃষকরা জানান, দিনে না কেটে লোকজনের চোখের আড়ালে রাতের অন্ধকারে ড্রেজার দিয়ে মাটি কাটায় চার দিকের ফসলি জমি ভেঙে ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। তারা দ্রুত প্রশাসনের হস্ত্যক্ষেপ কামনা করছেন।

লৌহজং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মু. রাশেদুজ্জামানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, এটা বন্ধ করার সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং আমি ঘটনা স্থলে লোক পাঠিয়ে ড্রেজারটি বন্ধ করে দিয়েছি। তবে যদি লুকোচুরি করে তা আবার পুনরায় চালু করে তবে আমি যথাযথ ব্যবস্থা নেব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা