kalerkantho

রবিবার । ১৫ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৫ রজব ১৪৪২

কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ : সেই বৃদ্ধার পাশে আমেরিকাপ্রবাসী

বিশ্বজিৎ পাল বাবু, ব্রাহ্মণবাড়িয়া   

১৩ জানুয়ারি, ২০২১ ০২:০৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশ : সেই বৃদ্ধার পাশে আমেরিকাপ্রবাসী

আপনজন কেউ না থাকায় হাসপাতালই ঠিকানা হয়ে ওঠা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার সেই বৃদ্ধার পাশে দাঁড়িয়েছেন মো. সেলিম খান নামে এক আমেরিকাপ্রবাসী। কালের কণ্ঠ অনলাইনে বৃদ্ধা পারভীন আক্তারের বিষয়ে সংবাদ প্রকাশের পর তিনি পাশে থাকার কথা জানান।

আখাউড়া পৌর এলাকার মালদারপাড়ার সেলিম খান এ প্রতিবেদককে জানান, কালের কণ্ঠ'র খবরটি তাঁর নজরে এসেছে। ওই বৃদ্ধার নিয়মিত খাবারের ব্যবস্থা তিনি করতে চান। তবে এ প্রতিবেদকের সঙ্গে আলোচনা করে ওই বৃদ্ধাকে নতুন কম্বল, শাড়ি, বিছানার চাদরসহ কিছু জিনিসপত্র দেবেন বলে জানান। বুধবার এসব জিনিস পৌঁছে দেওয়ার কথা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দ্বিতীয় তলায় নারীদের ওয়ার্ডের মেঝেতে ঠাঁই হয়েছে পারভীন আক্তারের। বয়সের ভারে যেসব সমস্যা থাকে, সেগুলোর লক্ষণ আছে শরীরে। তবে তিনি রোগী নন। তবু থাকা আর ভাতের নিশ্চয়তায় হাসপাতালে অবস্থান। 

প্রায় তিন মাসের মতো তিনি হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। পরে আবার ৬ জানুয়ারি ভর্তি হয়ে এখন পর্যন্ত হাসপাতালেই আছেন। এ নিয়ে মঙ্গলবার সকালে কালের কণ্ঠ অনলাইনে 'আপন কেউ নেই, হাসপাতালই ঠিকানা বৃদ্ধা পারভীনের' শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়।'

হাসপাতালে কর্মরত সিনিয়র স্টাফ নার্স রিজিয়া আক্তার বলেন, 'ওই নারী কোমরে ব্যথার জন্য দুইটা ওষুধ খায়। তবে ওনার তেমন কোনো সমস্যা নেই। থাকা আর খাওয়ার নিশ্চয়তার জন্য তিনি এর আগেও হাসপাতালে কয়েক মাস থেকে গেছেন।'

আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার শ্যামল কুমার ভৌমিক বলেন, 'ওই নারীর তেমন কোনো সমস্যা নেই। তিনি মূলত থাকা-খাওয়ার জন্যই আগে কয়েক মাস টানা হাসপাতালে ছিলেন।' এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, উদ্বাস্তু হিসেবে কাউকে হাসপাতালে রাখার নিয়ম আছে। তবে ওই নারী রোগী হিসেবেই ভর্তি আছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাশেদুর রহমান বলেন, 'রেলওয়ে জংশন হওয়ায় ও মাজার শরীফ থাকায় এখানে মাঝে মাঝে এ ধরনের লোক আসে, যাদের পরিচয় পাওয়া যায় না। ওই নারীরও পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তিনি তেমন অসুস্থ নন। মূলত থাকা-খাওয়া নিশ্চিত করতেই তিনি এখানে আছেন। আমাদের পক্ষ থেকে ওই নারীকে সব ধরনের সেবা দেওয়া হচ্ছে।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা