kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

বুলবুলির চোখে এখন আনন্দ অশ্রু

সনাতন দাশ, তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ)   

৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বুলবুলির চোখে এখন আনন্দ অশ্রু

মোসা. বুলবুলি (৫০)। বাড়ি সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার সাস্তান গ্রামে। প্রায় ২৫ বছর আগে স্বামী তাকে ছেড়ে চলে যায়। সেই থেকে সরকারি খাস জমিতে একটি ঝুপড়িঘরে একমাত্র ছেলেকে নিয়ে তার মানবেতর জীবনযাপন। দর্জির কাজ করে সামান্য উপার্জনে কোনোমতে দিনাতিপাত করতেন। হঠাৎ একদিন তার উঠোনে হাজির হন তাড়াশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেজবাউল করিম। তিনি জানান, সরকার তাকে একটি আধাপাকা বাড়ি নির্মাণ করে দেবে।

কথাটি বিশ্বাস করে উঠতে পারেননি বুলবুলি। তাঁর ধারণা- তাঁকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা হবে। ইতিপূর্বে গ্রামের প্রভাবশালীরা এমন চেষ্টা বহুবার করেছেন। তারপর সত্যি সত্যি যখন ইট, সিমেন্টসহ গৃহনির্মাণসামগ্রী এলো। তৈরি হতে থাকল আধাপাকা গৃহ, তখন তার চোখে সত্যিকারের আনন্দ অশ্রু। সরকারের প্রতি জানালেন অশেষ কৃতজ্ঞতা।

শুধু বুলবুলিই নয়, তার মতো আরো ১৫২টি অসহায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছেন এমন মাথা গোঁজার ঠিকানা। এর মধ্যেই ৭৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে তাড়াশ উপজেলা প্রশাসন নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার আটটি ইউনিয়নে ১৫২টি পরিবারের জন্য সরকারি খাস জমিতে পুরোদমে গৃহনির্মাণ কাজ চলছে। আগামী জানুয়ারি মাসে সারা দেশে একযোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘরগুলো হস্তান্তর করবেন। অধীর আগ্রহে উপকারভোগীরা সময় পার করছেন কখন তাদের স্বপ্নের গৃহে উঠবে। দুই শতাংশ খাস জমির ওপর নির্মিত প্রতিটি বাড়িতে দুটি শয়নকক্ষ, রান্নাঘর, টয়লেট ও অন্যান্য সুবিধা থাকছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা