kalerkantho

সোমবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭। ১ মার্চ ২০২১। ১৬ রজব ১৪৪২

স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা, কেটে দেওয়া হলো স্ত্রীর চুল

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৭:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বামীর বিরুদ্ধে নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা, কেটে দেওয়া হলো স্ত্রীর চুল

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ  ইউনিয়নের অনন্ত গোলাম আলীপুর গ্রামে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে নির্যাতন ও যৌতুকের মামলা করায় স্ত্রীর মাথার চুল কেটে দিয়েছে স্বামীর স্বজনরা। এ ঘটনায় স্ত্রীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে দেবর শামছু মিয়া (৩০) কে শনিবার গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

জগন্নাথপুর থানা পুলিশ ও ভুক্তভোগী গৃহবধূর অভিযোগ থেকে জানা যায়, অনন্ত গোলাম আলীপুর গ্রামের মুর্শেদ মিয়ার মেয়ে গুলশানা বেগমের বিয়ে হয় চার বছর আগে সুবিদপুর গ্রামের আশিদ উল্লার ছেলে মাসুক মিয়ার সাথে। সাম্প্রতিক সময়ে স্ত্রীকে মারধর ও যৌতুকের অভিযোগে গত ৩ ডিসেম্বর সুনামগঞ্জ হাকিম আদালতে মামলা দায়ের করেন গৃহবধূ গুলশানা বেগম। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে মাসুক মিয়ার নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। পরে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ গত সোমবার মাসুক মিয়াকে গ্রেপ্তার করে সুনামগঞ্জ আদালতে পাঠালে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে আসামিকে জেলহাজতে পাঠায়। এরই জের ধরে শুক্রবার রাতে মাসুক মিয়ার ভাই শামছু মিয়াসহ কয়েকজন আত্মীয় মিলে গুলশানা বেগমের বাড়িতে হামলা চালিয়ে মাথার চুল কর্তনসহ মারপিট ও ভাঙচুর করে। পরে ওই গৃহবধু থানায় গিয়ে ঘটনাটি জানালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত মাসুক মিয়ার ভাই শামছু মিয়া (৩০) কে গ্রেপ্তার করে।

জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। তাৎক্ষণিক একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়। অপর অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা