kalerkantho

সোমবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭। ১ মার্চ ২০২১। ১৬ রজব ১৪৪২

এখনো নিখোঁজ ৫

হাতিয়ায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবি, মিলল আরো ২ মরদেহ

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী   

১৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৪:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাতিয়ায় বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবি, মিলল আরো ২ মরদেহ

নোয়াখালীর হাতিয়ার মেঘনা নদীতে বরযাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনায় নিখোঁজ সাতজনের মধ্যে আরো এক নারী এবং এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। শনিবার ভোরে শিশু নিহা বেগম (১) এর মরদেহ রামগতি উপজেলার টাংকির খালসংলগ্ন মেঘনা নদী থেকে এবং জাকিয়া বেগম (৫৫) এর মরদেহ ভোলা জেলার মনপুরার কলাতলী এলাকা থেকে কোস্ট গার্ড স্টেশন হাতিয়া এবং স্টেশন রামগতি কর্তৃক চলমান সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ দল লাশগুলো উদ্ধার করে। এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় পাঁচ শিশু নিখোঁজ রয়েছে।

এর আগে, ঘটনার পর লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার টাংকির ঘাট এলাকা থেকে নববধূ, ৩ নারী ও ৩ শিশু এবং শুক্রবার বিকাল ৩টায় লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি উপজেলার টাংকির চরসংলগ্ন নদী থেকে হাতিয়া উপজেলার চানন্দি ইউনিয়নের আল আমিন গ্রামের মো. কাদের এর ছেলে মোহাম্মদ হাছানকে উদ্ধার করে।

এখন পর্যন্ত নিখোঁজ পাঁচজন হলো হাতিয়ার চানন্দি ইউনিয়নের আল আমিন গ্রামের মো. কাদের এর মেয়ে নারগিস বেগম (৪), রুবেল হোসেনের মেয়ে হালিমা (৪), বয়ারচর গ্রামের ইলিয়াছ উদ্দিনের ছেলে আমির হোসেন (২), ভোলার মনপুরার কলাতলী গ্রামের মহিন উদ্দিনের মেয়ে লামিয়া বেগম (৩) ও একই গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে আলিফ উদ্দিন (১)।

সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ দলের নেতৃত্বে থাকা হাতিয়া কোস্ট গার্ডের স্টেশন কমান্ডার তাহাসিন রহমান জানান, উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে। হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরান হোসেন বলেন, ট্রলারডুবির পর নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার দুপুরে ভোলার মনপুরা উপজেলার কলাতলী গ্রামের বেলাল মিস্ত্রীর ছেলে ফরিদ উদ্দিন বিয়ে করতে হাতিয়ার চানন্দি ইউনিয়নে আসে। বিয়ের অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর বর ও কনেসহ উভয় পক্ষের ৪০/৪৫ জন যাত্রী নিয়ে ট্রলারযোগে শান্তির বাজার ঘাট থেকে বরের বাড়ি ভোলা জেলার মনপুরার উদ্দেশে যাত্রা করে। পথে মেঘনা নদীর টাংকির খাল-ঘাসিয়ারচরের মাঝামাঝি এলাকায় তীব্র স্রোতের কবলে পড়লে ট্রলারটি ডুবে যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা