kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭। ২ মার্চ ২০২১। ১৭ রজব ১৪৪২

কোরআন মাহফিলে এসেছিল ছোট্ট তাবাচ্ছুম, মঞ্চের অদূরে মিলল বিবস্ত্র লাশ

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি    

১৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ১০:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোরআন মাহফিলে এসেছিল ছোট্ট তাবাচ্ছুম, মঞ্চের অদূরে মিলল বিবস্ত্র লাশ

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় তাফসিরুল কোরআন মাহফিল অনুষ্ঠানে আসা শিশু তাবাচ্ছুম খাতুনকে (৮) শ্বাসরোধে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। তাবাচ্ছুম উপজেলার চৌকিবাড়ি ইউনিয়নের নসরতপুর গ্রামের বেলাল হোসেন খোকনের মেয়ে এবং পাঁচথুপি-নসরতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে ধুনট থানা থেকে তাবাচ্ছুমের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এর আগে সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে নসরতপুর গ্রামে তাফসির মাহফিলের পাশে বাঁশঝাড়ের ভেতর থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, নিহত তাবাচ্ছুমের মা-বাবা জীবিকার তাগিদে ঢাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। তাবাচ্ছুম দাদা-দাদির সঙ্গে নসরতপুর গ্রামে থাকে। সরকারি অনুমতি ছাড়া নসরতপুর জান্নাতুল ফেরদৌস কবরস্থানে দুদিনব্যাপী তাফসিরুল কোরআন মাহফিলের আয়োজন করে কবরস্থান পরিচালনা কমিটি। সোমবার রাতে দাদা-দাদির সঙ্গে প্রথম দিনের তাফসির মাহফিল অনুষ্ঠানে যায় তাবাচ্ছুম। দাদা-দাদি মঞ্চের সামনে বসে তাফসির শুনতে থাকেন।

এ সময় সোমবার রাত ১০টার দিকে দাদা-দাদির কাছ থেকে তাবাচ্ছুম চিপস কেনার জন্য মঞ্চের বাইরে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে মাহফিলের অদূরে বাঁশঝাড়ের ভেতর বিবস্ত্র অবস্থায় তাবাচ্ছুমের মৃতদেহ উদ্ধার করে স্বজনরা। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ তাবাচ্ছুমের মৃতদেহ থানা হেফাজতে নেন। স্থানীয়দের ধারণা, ধর্ষণের পর তাবাচ্ছুমকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।  

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, শিশু হত্যার ঘটনাটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচন করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা