kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

মাদারীপুরে 'মানবতার গাড়ি'র যাত্রা শুরু

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৯:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মাদারীপুরে 'মানবতার গাড়ি'র যাত্রা শুরু

মাদারীপুর শহরের শকুনি লেকপাড়ের শহীদ কানন চত্বরে শুক্রবার সন্ধ্যায় উদ্বোধন হলো মানবতার গাড়ির কার্যক্রম। কালের কণ্ঠ শুভসংঘ মাদারীপুর শাখার উদ্যোগে নকশি কাঁথার সহযোগিতায় এই 'মানবতার গাড়ি' বিভিন্ন মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের অপ্রয়োজনীয় জিনিস সংগ্রহ করবে। পরে গাড়িটি গ্রামে গ্রামে গিয়ে যাদের প্রয়োজন এমন অসহায়, দুস্থ, ছিন্নমূল ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের দেওয়া হবে।

মানবতার গাড়ির কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন গিয়াস ও আছমত আলী খান সেন্ট্রাল হাসপাতালের চিকিৎসক মোহাম্মাদ সোহেল-উজ্জামান। এ সময় আরো ছিলেন স্থানীয় সংগঠন আমরা মাদারীপুরবাসী এর পক্ষে মহিউদ্দিন ফারুকী, এনায়েত হোসেন নান্নু, নিরাপদ চিকিৎসা চাই এর অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান পারভেজ, বায়জিদ মিয়া, কালের কণ্ঠ শুভসংঘের কেন্দ্রিয় কমিটির সহসভাপতি সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী, মৈত্রি মিডিয়া সেন্টারের সাধারণ সম্পাদক এস এম আরাফাত হাসান।

আরো ছিলেন সাংস্কৃতিককর্মী সালাউদ্দিন সালু, নৃত্য প্রশিক্ষক তাসলিমা হাই ফোটন, সরোয়ার হোসেন মোল্লা, শিক্ষক শাহাদাত হোসেন, রুবেল তালুকদার, কাজী সবুজ, সাংবাদিক সাহাদাত জুয়েল, আবৃত্তি প্রশিক্ষক ইমরান সাগর, সাংবাদিক সুইটি আক্তার, বিডি ক্লিনের আমিনুল ইসলাম সোহান, শুভসংঘের সহসভাপতি রাকিব হাসান বকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম জুবায়ের জাহিদ প্রমুখ।

মানববতার গাড়ি তৈরি করার জন্য অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করেন শুভসংঘের উপদেষ্টা আফতাব উদ্দিন মিয়া ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ওয়াদুদ মিয়া (জনি মিয়া), সমাজসেবক রেজাউল হক টিপু ও সমাজসেবক জুয়েল মাতুব্বর। নতুন কাপড় দিয়েছেন সমাজসেবক বাইজীদ মিয়া। আরো কিছু কাপড় দিয়েছেন সমাজসেবক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ডা. রেজাউল আমিন, মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের উপপরিচালক মাহমুদা আক্তার কণা, ইশরাত জাহান লাবনী, শিক্ষক শাহদাত হোসেন, এনায়েত হোসেন নান্নু প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে স্ট্যাটাসের মধ্যে টাকা ও কাপড় সংগ্রহ করে তা অসহায়দের মধ্যে বিতরণের ব্যবস্থা করছেন।

গাড়ি তৈরির কাজে স্বেচ্ছাসেবক শুভসংঘের মিলন মুন্সি ও কে এম জুবায়ের জাহিদ এবং আমিনুল ইসলাম সোহান জানান, আমরা নিজেরাই এই গাড়ি চালিয়ে বিভিন্ন গ্রামে নিয়ে অসহায়দের মধ্যে তাদের প্রয়োজনীয় জিনিস দিয়ে আসব। 

সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী জানান, আপনাদের অপ্রয়োজনীয় জিনিসটি আমাদের দিলে আমরা তা যাদের প্রয়োজন এমন মানুষের হাতে পৌঁছে দেব। তাই আপনাদের অপ্রয়োজনীয় জিনিসটি ঘরে না রেখে আমাদের দিন। এতে করে অনেক গরিব অসহায় মানুষের উপকার হবে। এমন স্লোগান নিয়ে আমরা এই কার্যক্রম করছি। তা ছাড়া আমরা গত দুই বছর মানবতার দেয়াল তৈরি করে এই কার্যক্রম করেছি। পরে বিশেষ করে গ্রামের অসহায় মানুষগুলো কথা চিন্তা করে এই মানবতার গাড়ি তৈরি করা হয়েছে। আমরা প্রতিসপ্তাহে এই গাড়ি নিয়ে চলে যাবে কোনো গ্রামে। প্রতিসপ্তাহে ভিন্ন ভিন্ন গ্রামে যাব। এতে করো গ্রামের অনেক মানুষ উপকৃত হবে। শীত মৌসুম ছাড়াও যেকোনো দুর্যোগেও আমরা এই গাড়িতে করে ত্রাণ নিয়ে অসহায়দের মধ্যে ছুটে যাব।

মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুদ্দিন গিয়াস বলেন, এই মানবতার গাড়ির কার্যক্রমকে অভিনন্দন জানাই। আমরা বিভিন্নস্থানে মানবতার দেয়াল দেখেছি। তেমনভাবে মানবতার গাড়ি চোখে পড়েনি। তাই এই ব্যতিক্রম মানবিক কাজের জন্য তৈরি, এই গাড়ি আরো এগিয়ে যাবার ব্যাপারে আমরা সহযোগিতা করব।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা