kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ময়মনসিংহে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ, শাশুড়ি গ্রেপ্তার

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ০২:১৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ময়মনসিংহে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ, শাশুড়ি গ্রেপ্তার

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের চরপুবাইল গ্রামে তাসলিমা আক্তার (২৮) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল শুক্রবার সকালে তড়িঘড়ি করে লাশ দাফনের চেষ্টা করে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। স্বজনরা এলেও লাশ দেখতে বাধা দেওয়ার পর গোসলের সময় ধরা পড়ে ওই গৃহবধূর গলা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে লাশ ফেলে পালিয়ে যায় স্বামী ও শ্বশুর। তবে এ ঘটনায় গৃহবধূর শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

স্থানীয় সুত্র জানায়, উপরেজলার মগটুলা ইউনিয়নে নারায়নপুরে গ্রামের আবদুস সালামের মেয়ে তাসলিমার সাত বছর আগে বিয়ে হয় ঈশ্বরগঞ্জ ইউনিয়নের চরপুবাইল গ্রামের আলিম উদ্দিনের ছেলে সোহেল মিয়ার (৩২) সঙ্গে। তাঁদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। 

গত বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে তাসলিমার বাড়িতে খবর পাঠানো হয় তাসলিমা স্ট্রোক করে মারা গেছে। ওই অবস্থায় রাতেই পরিবারের লোকজন ছুটে এলেও কাউকে লাশ দেখতে দেওয়া হয়নি। বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হলে সকালে স্বজনরা দাবি তুলে গোসলের সময় যেন তাদের পরিবারের কাউকে রাখা হয়। পরে দেখা যায় লাশের গলায় ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় একাদিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাৎক্ষনিক কথা কাটাটির এক পর্যায়ে লাশ রেখেই দ্রুত গা ঢাকা দেয় স্বামী, শ্বশুর ও অন্যরা। পুলিশকে খবর দিলে লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়। সেই শ্বাশুড়ি নুরুন্নাহারকে আটক করা হয়। 

জানা যায়, নিহত গৃহবধূর স্বামী ঢাকায় একটা বেসরকারি কম্পানিতে চাকরি করতেন। করোনার জন্য বাড়িতে চলে এলে টাকার জন্য স্ত্রীকে চাপ দিয়ে আসছিলেন। কয়েক দফায় টাকা এনে দিলেও ফের টাকা না দিতে পারায় বেশ কয়েকদিন ধরে ঝগড়ার পাশপাশি স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালাচ্ছিল স্বামীসহ পরিবারের লোকজন। ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল কাদির মিয়া জানান, এ বিষয়ে চারজনকে অভিযুক্ত করে একটি হত্যা মামলা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা