kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

আপত্তিকর অবস্থায় পুলিশ সদস্য ধরা! অবশেষে ধর্ষণ মামলা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ২০:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আপত্তিকর অবস্থায় পুলিশ সদস্য ধরা! অবশেষে ধর্ষণ মামলা

ধর্ষণের মামলা থেকে রক্ষা পেতে ২০ লাখ টাকার দেনমোহরের শর্তে ফের বিয়ের প্রস্তাব দিয়েও রক্ষা পাননি পুলিশ সদস্য আব্দুল কাইয়ুম (৩২)। এক তরুণীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা খেয়ে থানায় আনার পর শুক্রবার ওই তরুণী বাদী হয়ে ময়মনসিংহের নান্দাইল থানায় ধর্ষণের মামলা করেছে। গ্রেপ্তার হয়েছে ওই পুলিশ সদস্য। 

স্থানীয় সূত্র জানায়, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নান্দাইল উপজেলার চরবেতাগৈর ইউনিয়নের চর উত্তরবন্দ গ্রামে আব্দুল মন্নাছের বাড়িতে এক তরুণীসহ স্থানীয়দের হাতে ধরা পড়েন নান্দাইল থানার সাবেক পুলিশ সদস্য আব্দুল কাইয়ুম (৩২)। তিনি বর্তমানে নেত্রকোনার খালিয়াজুরি থানার লেপসিয়া পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল পদে চাকরি করছেন।

আরো পড়ুন :

তরুণীকে নিয়ে ফুর্তি, জনতার হাতে ধরা পুলিশ সদস্য

আপত্তিকর অবস্থায় ধরা! ২০ লাখ টাকায় ধর্ষণ মামলা থেকে পুলিশ সদস্যের রক্ষা

খবর পেয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে থানায় আনে নান্দাইল পুলিশ। থানায় আটক পুলিশ সদস্য দাবি করেন, তরুণী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। তবে তাদের বিয়ের কাগজ যাচাই করে ভুয়া বলে প্রমাণিত হয়। এ অবস্থায় ওই তরুণীকে বাদী করে পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এক পর্যায়ে তরুণীর পরিবার থানায় বসেই সিদ্ধান্ত নেয় ২০ লাখ টাকা দেনমোহরে ফের বিয়ে করলে মামলা থেকে ছাড় দেওয়া হবে। এ নিয়ে কালের কণ্ঠে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের নজরে আসে। অবশেষে তাঁদের নির্দেশেই শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে ধর্ষণের মামলা রেকর্ডভুক্ত হয়।

নান্দাইল থানার ওসি মিজানুর রহমান আকন্দ মামলা রেকর্ডের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ধর্ষণের শিকার তরুণীকে শনিবার ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে। অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে শনিবার আদালতে পাঠানো হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা