kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বেনাপোল-পেট্রাপোল পরিদর্শনে ভারতীয় হাইকমিশনার

বেনাপোল প্রতিনিধি   

৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ০১:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেনাপোল-পেট্রাপোল পরিদর্শনে ভারতীয় হাইকমিশনার

দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোল দিয়ে ভারতের সাথে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য ও পাসপোর্টযাত্রী যাতায়াতে সুবিধা-অসুবিধা সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী। বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি বেনাপোল ও ভারতের পেট্রাপোল বন্দর এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে ভারত-বাংলাদেশ গমনাগমনকারী পাসপোর্টযাত্রীদের খোঁজখবর নেন এবং তাদের সঙ্গে কথা বলেন।

হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বেনাপোল চেকপোস্টে এসে পৌঁছালে তাকে ফুলের শুভেচ্ছা জানান কাস্টমস, বন্দর, সিএন্ডএফ এজেন্ট, প্রশাসন ও পুলিশসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীক নেতারা। এ সময় হাইকমিশনারের বেনাপোল বন্দর পরিদর্শন উপলক্ষে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়।

হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামীর সফরসঙ্গী ছিলেন, সহকারী হাইকমিশনার রায়না রাজেস কুমার এপি ডব্লিউ ঢাকা এবং অমিত কুমার খুলনা বিভাগীয় সহকারী হাইকমিশনার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার মো. আজিজুর রহমান, অতিরিক্ত কমিশনার ড. মো. নেয়ামুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল, যশোর নাভারন সার্কেল এএসপি জুয়েল ইমরান, বেনাপোল স্থলবন্দরের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আব্দুল জলিল, উপপরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদার, শার্শা উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) রাসনা শারমিন মিথি, বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন, ইন্দো বাংলা চেম্বার অব কর্মাসের পরিচালক মতিয়ার রহমান, বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি মামুন খান, ইমিগ্রেশন ওসি আহসান কবির ও ওসি তদন্ত মহসিন কবির প্রমুখ।

দুই দেশের ব্যবসায়ীরা মনে করছেন, ভারতীয় হাই কমিশনারের পেট্রাপোল-বেনাপোল বন্দর পরিদর্শনে চলমান বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। একই সঙ্গে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে জটিলতা ও ভারত ভ্রমণে পাসপোর্ট যাত্রীদের দূর্ভোগ লাঘব হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা