kalerkantho

শনিবার । ৯ মাঘ ১৪২৭। ২৩ জানুয়ারি ২০২১। ৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সীতাকুণ্ডে দুই প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা, বৈধ ৮৫ প্রার্থীর

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৩ ডিসেম্বর, ২০২০ ২১:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সীতাকুণ্ডে দুই প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা, বৈধ ৮৫ প্রার্থীর

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত যাচাই বাছাই শেষে একজন মেয়র ও একজন কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন সহকারী রিটার্নিং অফিসার। এ ছাড়া অবশিষ্ট ৮৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। এদিকে সহকারী রিটার্নিং অফিসারের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন অবৈধ ঘোষিত হওয়া মেয়র প্রার্থী জহিরুল ইসলাম।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, আগামী ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য সীতাকুণ্ড পৌরসভা নির্বাচনের মনোনয়নপত্র দাখিলকারী ৮৭ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই হয়েছে বৃহস্পতিবার। এদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সময়ে মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইকালে নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম ও ৮নং ওয়ার্ড এর কাউন্সিলর প্রার্থী মো. মফিজুল ইসলামের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন পৌরসভা নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ।

তিনি জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নাগরিক কমিটির প্রার্থী জহিরুল ইসলাম ১০০ জনের সমর্থনের সাক্ষর জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে ৫ জন বেছে নিয়ে তাদের সম্পর্কে আমরা তদন্ত করতে নিশ্চিত হই যে একজনের বাড়ি গোপালগঞ্জে। তিনি সীতাকুণ্ড পৌরসভার ভোটার নন। শর্ত অনুযায়ী সমর্থনকারী প্রত্যেককেই প্রার্থীর এলাকার ভোটার হতে হবে। যেহেতু এ ক্ষেত্রে তা হয়নি, একজন অন্য জায়গার ভোটার তাই আমরা মেয়র প্রার্থী জহিরুল ইসলামের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করি।

পাশাপাশি পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর ও প্রার্থী মো. মফিজুল ইসলামের মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাগত যোগ্যতা উল্লেখ করলেও সার্টিফিকেট দেখাতে পারেননি।

সহকারী রিটার্নিং অফিসার আরো বলেন, তবে এ দুই প্রার্থীই আপিল করতে পারবেন। আপিলে যদি বৈধ হন তাহলে আবারো নির্বাচনে আসার সুযোগ পাবেন। আর সেখানেও অবৈধ হলে তারা নির্বাচনের সুযোগ হারাবেন। এ ছাড়া অন্য ৮৫ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে। এরা হলেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব বদিউল আলম ও বিএনপির প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল মুনছুর, ৭ ১জন সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী ও ১৩ জন সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী।

এদিকে মনোনয়ন অবৈধ করাকে ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে সহকারী রিটার্নিং অফিসারের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন নাগরিক কমিটির প্রার্থী সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে তিনি অভিযোগ করে বলেন, শুরু থেকেই নির্বাচন কমিশনের তদন্ত কর্মকর্তা তার সমর্থকদের যাচাই করতে গিয়ে ধমকের সূরে কথা বলে বিভ্রান্তি করতে চান। এ ছাড়া অনেক প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ দেখাতে নির্বাচন কর্মকর্তারা সময় দিলেও তাকে কোনো সময় দেওয়া হয়নি। তাকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে দিতেই এভাবে মনোনয়নপত্রটি বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করে তিনি আপিল করবেন বলে জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা