kalerkantho

রবিবার। ৩ মাঘ ১৪২৭। ১৭ জানুয়ারি ২০২১। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

পরীক্ষার দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অবস্থান

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৮:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরীক্ষার দাবিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অবস্থান

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক (সম্মান) চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে চতুর্থ বর্ষের (৪৫তম ব্যাচ) শিক্ষার্থীরা। দাবি না মানলে লাগাতার প্রশাসনিক ভবন অবরোধের ঘোষণা দেন তারা। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রশাসনিক ভবনের সামনে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে বিভিন্ন বিভাগের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

লোকপ্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী আমিরুল ইসলাম সুজনের সঞ্চালনায় কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন চতুর্থ বর্ষের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। অবস্থান কর্মসূচিতে দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী রিয়াজুল ইসলাম বলেন, অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষ করে ফেলে ফলাফল পেয়ে গেছে। এ ছাড়া করোনার মধ্যেও আটকে থাকা চূড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণের সময়সূচি প্রকাশ করেছে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়। কিন্তু আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের এ ব্যাপারে কোনো মাথাব্যথা আছে বলে মনে হচ্ছে না। সেশন জটের কারণে আমরা ৪১তম বিসিএসে আবেদন করতে পারিনি। এখন ৪৩তম বিসিএসের সার্কুলার হয়ে গেছে। কিন্তু আমাদের পরীক্ষা শেষ করার কোনো উদ্যোগ নেই। দ্রুত চতুর্থ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণ করতে হবে।

অবস্থান কর্মসূচির এক পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদের আলোচনার জন্য ডাকেন। আলোচনায় রহিমা কানিজ বলেন, শিক্ষার্থীদের স্মারকলিপির প্রেক্ষিতে উপাচার্য একটি প্রশাসনিক সভা ডেকে আলোচনা করেছেন। পরীক্ষা গ্রহণের প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। এখন একটি বিভাগীয় সভাপতিদের সভা, একটি ডিনস কমিটির বৈঠক, একাডেমিক কাউন্সিলের সভা এবং সিন্ডিকেট সভা হলেই আমরা পরীক্ষার সময়সূচী প্রকাশ করতে পারবো।

এর আগে স্নাতক (সম্মান) চূড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে মানববন্ধন ও উপাচার্যকে স্মারকলিপিও দিয়েছিলেন শিক্ষার্থীরা।

পরে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে আগামী ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দেওয়া হয়। এ সময়ের মধ্যে পরীক্ষার বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো কার্যকর সিদ্ধান্ত না আসলে লাগাতার প্রশাসনিক ভবন অবরোধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা