kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

প্রেমের ফাঁদে ধরা প্রতারক

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৩:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেমের ফাঁদে ধরা প্রতারক

প্রতারণার শিকার হলে ভুক্তভোগীরা সচরাচর ছোটে পুলিশের কাছে। আর পুলিশ ছোটে অপরাধীর পেছনে। কিন্তু ভুক্তভোগী যদি ছোটে অপরাধীর পেছনে? হ্যাঁ, এমন ঘটনাই ঘটেছে রাজশাহীতে। বিকাশে প্রতারণার শিকার হয়েছিলেন রাজশাহী নিউ গভর্নমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী। পরে পুলিশের পরামর্শে ‘প্রেমের অভিনয়’ করে প্রতারকদের কাছ থেকে উদ্ধার করেন হাতিয়ে নেওয়া ৫১ হাজার টাকা। দুই প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্রতারকরা হলেন ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার জাঙ্গালপাশা মধ্যপাড়া গ্রামের আবদুল খানের ছেলে হাসান খান (২০) এবং জাঙ্গালপাশা পূর্বপাড়া গ্রামের নূর মোহাম্মদ শেখের ছেলে মাহমুদ হাসান ওরফে বায়েজিদ (২১)।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপকমিশনার আবু আহাম্মদ আল মামুন কালের কণ্ঠকে জানান, গত ১৬ নভেম্বর প্রতারক হাসান নিজেকে কলেজের শিক্ষক পরিচয় দিয়ে জানান, করোনাকালে বিকাশের মাধ্যমে সরকার শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দিচ্ছে, কিন্তু বিকাশ নম্বরে ৫০ হাজার টাকা থাকতে হবে। ওই শিক্ষার্থী টাকা বিকাশ করে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পারেন। পরে তাঁর বাবা পুলিশকে বিষয়টি জানান।

ডিবির ওই কর্মকর্তা আরো জানান, পুলিশের পরামর্শে প্রেমের ফাঁদ পাতেন ওই ছাত্রী। ফাঁদে পা দিয়ে  গত রবিবার বিকেলে দুই প্রতারক ফরিদপুর থেকে ওই ছাত্রীর সঙ্গে দেখা করতে রাজশাহীতে আসেন। তখন পুলিশ তাঁদের গ্রেপ্তার করে। তাঁদের কাছ থেকে ৭৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁরা পেশাদার প্রতারকচক্রের সক্রিয় সদস্য।

এই ঘটনায় ছাত্রীর বাবা নগরীর রাজপাড়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছেন। গতকাল সোমবার প্রতারকদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা