kalerkantho

রবিবার । ১০ মাঘ ১৪২৭। ২৪ জানুয়ারি ২০২১। ১০ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সেতুতে উঠতে বাঁশের সাঁকো

হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

২৪ নভেম্বর, ২০২০ ১৫:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সেতুতে উঠতে বাঁশের সাঁকো

বাঁশের সাঁকো দিয়ে উঠতে হয় সেতুতে। মানুষের ভোগান্তির যেন শেষ নেই। ময়মনসিংহ জেলার ধোবাউড়া উপজেলার দক্ষিণ মাইজপাড়া ইউনিয়নের মক্রমের খালের ওপর প্রায় ১০ বছর আগে একটি সেতু নির্মাণ করা হয়। ভোগান্তির শুরু সেখান থেকেই। সেতু নির্মাণ করা হলেও সেতুর দুই পাশে ফেলা হয়নি মাটি। স্থানীয়রা তাই নিজ উদ্যোগে সেতুর দুই পাশে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করে চলাচল করেন। বর্তমানে জনভোগান্তি চরম আকার ধারণ করেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা দুর্যোগ ও ত্রাণ বিভাগ ও উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয়ে যোগাযোগ করা হলে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয়রা জানান, এই সেতু দিয়ে বলরামপুর, কাশিপুর, রামনাথপুর,বাকপাড়া, গিলাগড়াসহ প্রায় ১০ গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ চলাচল করে। সেতুটি ১০ বছর আগে নির্মাণ করা হয়েছিল। কিন্তু সেটির দুই পাশে গভীর খাদে মাটি ভরাট করা হয়নি। ফলে ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাঁকো দিয়ে মানুষ চলাচল করে। শুধু তা-ই নয়, নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী ঝুঁকি নিয়ে পার করতে হয়।

সেতুর বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ইসতিয়াক হোসাইন বলেন, আমি প্রথমবারের মতো বিষয়টি আপনার কাছে শুনলাম। এ সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। তবে এমনটি হয়ে থাকলে তা দুঃখজনক। আমাদের যেহেতু সেতু নির্মাণ প্রকল্প রয়েছে, আমরা সরেজমিনে তদন্ত করে বলতে পারব।

উপজেলা প্রকৌশলী শাহিনুর ফেরদৌস বলেন, আমি জায়গাটিই চিনতে পারছি না। আমরা নির্মাণ করেছি কি না বলতে পারছি না। আমি সেতুটি সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে বলতে পারব। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাফিকুজ্জামান বলেন, আমি বিষয়টি সম্পর্কে অবগত নই। আমরা খোঁজ নিয়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা