kalerkantho

শুক্রবার। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৪ ডিসেম্বর ২০২০। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

সবজির ভালো দামে বন্যার ক্ষতিপূরণ

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি   

২২ নভেম্বর, ২০২০ ১৬:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সবজির ভালো দামে বন্যার ক্ষতিপূরণ

'বন্যায় আমগোর মেলা ক্ষতি অইলেও অহন দাম ভালো পাইতাছি। ফলনও ভালো অইছে। বাজারে লইতে অয় না। ক্ষেতেই পাইকার আইয়া লইয়া যায়। লাভও ভালো অইছে।' কথাগুলো বলেছেন শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার মাটিয়াকুড়া গ্রামের কৃষক সাইফুল ইসলাম।

তিনি বলেন, দুই কাঠা (১০ শতাংশ) জমিতে লাউ চাষ করছিলাম। প্রায় ৮০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করছি। দেড় মাস যাবৎ বিক্রি করছি।

তার মতো একই কথা শোনালেন চৈতজানি গ্রামের আমিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, শসা, সীম, ফুলকপি, বাধাকপি, চিচিংঙ্গা আর লাউ চাষ করেছি। এবার ভালো ফলন হয়েছে। দামও ভালো।

তিনি আরো বলেন, 'বন্যা এবং বন্যার পর সবজি ক্ষেতে এডা রোগ দেহা দিছিল। এতে কিছুডা ক্ষতি অইছে। তবে সবজির দাম ভালো হওয়ায় ওই ক্ষতি পুষিয়ে এবার আমগোর দ্বিগুন লাভ অইছে। অহনও বাজারে সবজির দাম ভালো।'

আগামী এক সপ্তাহ পর পর্যায়ে এবার উৎপাদতি ৫০ হাজার মেট্রিক টন সবজি বাজারে যাবে বলে জানান উপজেলা কৃষি অফিস। সোমবার সরেজমিন ঘুরে কৃষক, ব্যবসায়ী ও উপজেলা কৃষি অফিসারের কথা বলে ওঠে আসে এমন তথ্য।

জানা যায়, এবছর বন্যায় বড় ক্ষতি হয়েছে সবজি চাষিদের। বন্যার পর সবজি ক্ষেতে দেখা দেয় নতুন পোকা আর  ছত্রাকের আক্রমন। এ সময় স্থানীয়দের নির্ভর করতে হয়েছে উপজেলার সীমান্তবর্তী গারো পাহাড়ের উৎপাদিত সবজির উপর। তবে স্থানীয় পাইকাররা সবজির বাজার চড়া হওয়ায় ব্যবসায়ীকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলে বাদি করেন।

এদিকে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই বাজারে সবজির সরবরাহ স্বাভাবিক হবে এবং দাম সহনীয় পর্যায়ে আসবে বলে জানান উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হুমায়ুন দিলদার। তিনি বলেন, সবজির দাম ভালো হওয়ায় কৃষকরা লাভবান হয়েছে। এজন্য কৃষকরা সবজি চাষে আগ্রহ বাড়বে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা