kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

৬ ধর্ষণ: চকোলেট বিক্রেতা কিশোরীকে বাসে, স্বামীকে জিম্মি করে গাড়িতে গৃহবধূকে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ নভেম্বর, ২০২০ ০৭:৫১ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



৬ ধর্ষণ: চকোলেট বিক্রেতা কিশোরীকে বাসে, স্বামীকে জিম্মি করে গাড়িতে গৃহবধূকে

নরসিংদীর পলাশে স্বামীকে পিস্তলের মুখে জিম্মি করে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে এক কাউন্সিলরের ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। নির্যাতিত গৃহবধূ গতকাল রবিবার সকালে পলাশ থানায় মামলাটি করেন। অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকার উপজেলার ভাগ্যেরপাড়া গ্রামের আবদুল ছাত্তার খন্দকারের ছেলে ও ঘোড়াশাল পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আলম খন্দকারের ছোট ভাই।

এদিকে গাজীপুরে তাকওয়া পরিবহনের চলন্ত বাসে এক কিশোরীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই ঘটনায় বাসটির চালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চট্টগ্রাম, নারায়ণগঞ্জ ও নোয়াখালীতে শিশুসহ চারজনকে ধর্ষণ ও একজনকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। বগুড়ার ধুনট উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে বাকপ্রতিবন্ধী নারী ধর্ষণ মামলার আসামি কাঠমিস্ত্রি আবুল কালামকে (২৭) শনিবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। গতকাল তাঁকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তিনি উপজেলার গোপালনগর গ্রামের মোকবুল হোসেন মকুলের ছেলে।

পলাশ উপজেলায় নির্যাতিত গৃহবধূর পরিবার ও পুলিশ জানায়, গৃহবধূর স্বামী অভিযুক্ত পাপ্পু খন্দকারের কাছে কয়েক মাসের বেতন পান। বেতন না দেওয়ায় কষ্টের জীবন যাপন করতে হচ্ছে তাঁদের। একপর্যায়ে টাকা চাইতে গেলে গত ২৬ অক্টোবর রাতে টাকা দেওয়ার কথা বলে তাঁদের (গৃহবধূ ও তাঁর স্বামী) ব্যক্তিগত ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে ডেকে নেন পাপ্পু। পরে সেখানে স্বামীকে পিস্তলের মুখে জিম্মি করে ব্যক্তিগত গাড়ির ভেতরে গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন পাপ্পু। পিস্তলের ভয় দেখিয়ে ঘটনাটি কাউকে না জানাতে হুমকিও দেওয়া হয়। ভয়ে বিষয়টি কাউকে জানাননি তাঁরা। কিন্তু কয়েক দিন ধরে পাপ্পু গৃহবধূকে তাঁর কাছে এনে দেওয়ার জন্য গৃহবধূর স্বামীকে চাপ দিচ্ছিলেন। বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে গৃহবধূ ধর্ষণের অভিযোগে পাপ্পু ও তাঁর সহযোগী শাহাদাত হোসেনের বিরুদ্ধে গতকাল মামলা করেন।

পলাশ থানার ওসি শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানান, পলাতক পাপ্পু খন্দকার ও তাঁর সহযোগী শাহাদাতকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। ভুক্তভোগী গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

চলন্ত বাসে কিশোরীকে ধর্ষণ, চালক গ্রেপ্তার
গাজীপুরে শনিবার রাতের ঘটনায় ভুক্তভোগী কিশোরী রাতেই বাসচালক সাদ্দাম হোসেন (২২) ও তাঁর সহকারী (হেলপার) শরীফ হোসেনকে (২০) আসামি করে জয়দেবপুর থানায় মামলা করেছে। গ্রেপ্তারকৃত সাদ্দাম হোসেন শেরপুরের শ্রীবরদী থানার বাগতা এলাকার সুরুজের ছেলে। মামলা সূত্রে জানা গেছে, জামালপুরের কিশোরীটি পরিবারের সঙ্গে আশুলিয়ায় ভাড়া বাসায় থেকে যাত্রীবাহী বাসে চকোলেট বিক্রি করে। শনিবার রাত ৯টার দিকে সে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা-চান্দনা চৌরাস্তা রুটের তাকওয়া পরিবহনের বাসে উঠে চকোলেট বিক্রি করছিল। বাসটি যাত্রী নিয়ে চান্দনা চৌরাস্তায় আসে। সব যাত্রী নেমে গেলেও সাদ্দাম ও শরীফ কিশোরীকে না নামিয়ে বাস নিয়ে আবার চন্দ্রার দিকে যেতে থাকেন। কালিয়াকৈরের পল্লীবিদ্যুৎ এলাকার ফ্লাইওভারে বাস থামিয়ে তাঁরা কিশোরীকে অনৈতিক প্রস্তাব দেন। রাজি না হলে তাঁরা তার পরনের কাপড় ছিঁড়ে ফেলেন। কিশোরী ডাক-চিৎকার শুরু করলে টহল পুলিশ এগিয়ে আসতে থাকলে তাঁরা ওড়না দিয়ে তার মুখ বেঁধে ফেলেন ও বাসটি চন্দ্রার দিকে নিয়ে যেতে থাকেন। পুলিশ বাসটি ধাওয়া করে। সাদ্দাম বাসটি চন্দ্রা থেকে ইউটার্ন নিয়ে মৌচাক দিয়ে ভান্নারা-ফুলবাড়িয়ায় (শাখা সড়ক) ঢুকে পালিয়ে যেতে থাকেন। পথে শরীফ কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। বাসটি গাজীপুর সদর উপজেলার মেম্বারবাড়ী বাসস্ট্যান্ডের কাছে পৌঁছলে জয়দেবপুর থানার টহল পুলিশ ব্যারিকেড দিয়ে থামায়। শরীফ পালিয়ে গেলেও আটক হন সাদ্দাম। বাস থেকে উদ্ধার করা হয় কিশোরীকে।

গাজীপুরের জয়দেবপুর থানার ওসি মো. জাবেদুল ইসলাম জানান, নির্যাতিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরো চারজনকে নির্যাতন, গ্রেপ্তার ৬
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পৃথক ঘটনায় কিশোরী ধর্ষণ ও শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার খলাপাড়ায় শুক্রবার রাতে কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় শনিবার রাতে পুলিশ অন্যতম অভিযুক্ত ইব্রাহিম হোসেন অপুকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে। আরেক অভিযুক্ত জিয়ার হোসেন (৩৫) খলাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় কিশোরীর পিতা শনিবারই আখাউড়া থানায় মামলা করেন। গতকাল ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়। অন্যদিকে পৌর এলাকার কলেজপাড়ায় গত ২ নভেম্বর শিশু (৫) ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্ত মো. তোফায়েলকে গতকাল গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শিশুটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। এর আগে বিষয়টি জানানো হলেও পুলিশ ব্যবস্থা নেয়নি। আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহমেদ নিজামী বলেন, ‘থানায় গুরুতর কিছু বলেনি শিশুটির পরিবার। অভিযুক্তকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে বিচারের পরিকল্পনা ছিল।’

স্বামীর সঙ্গে বিরোধ মিটিয়ে দেওয়ার কথা বলে এক গৃহবধূকে কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রাম নগরের লালখান বাজারের একটি বাসায় এনে শুক্রবার রাতে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। পরের দিন দুপুরে ভুক্তভোগী বাসাটিতে ফেলে যাওয়া বোরকা আনতে গেলে স্থানীয় বখাটে তাঁকে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। তিনি এতে রাজি না হলে মারধর করে তাঁর কাছ থেকে টাকা ছিনিয়ে নেন। এ ঘটনায় গৃহবধূ খুলশী থানায় আটজনের বিরুদ্ধে মামলা করলে ধর্ষণে অভিযুক্ত মনির হোসেন (৩৩) এবং তাঁর সহযোগী দিদার (২২) ও সোহেলকে (২৪) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (বায়েজিদ জোন) পরিত্রাণ তালুকদার জানান, ভুক্তভোগী গৃহবধূ নগরে ভাড়া বাসায় স্বামীর সঙ্গে থাকেন। কিছুদিন আগে তাঁদের মধ্যে ঝগড়া হলে গৃহবধূ কুমিল্লার বাসায় চলে যান।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ মিজমিজি দক্ষিণ সাহেবপাড়া এলাকার জামিয়াতুল ইমান মাদরাসায় ছাত্রকে একাধিকবার (সর্বশেষ ২ অক্টোবর) বলাৎকারের অভিযোগে শিক্ষক মিজানুর রহমানকে (২৭) শনিবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁর বাড়ি সিলেটের জকিগঞ্জ থানার কোনাগ্রাম এলাকায়। এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর বাবা সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন।

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নে শনিবার এক ছাত্রকে (১০) বলাৎকারের অভিযোগে গতকাল চরজব্বার থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যবসায়ী মো. মাসুদকে (২৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি পশ্চিম চরজব্বার গ্রামের আবু বক্কর ছিদ্দিক ওরফে বাচ্চু মিয়ার ছেলে। শিশুটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

(প্রতিবেদনটি তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র সংশ্লিষ্ট এলাকার নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা)

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা