kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

১ হাজার লোকের বিএমডি পরীক্ষা সম্পন্ন, শেষ হলো ছয় দিনের হেলথ ক্যাম্প

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

২৯ অক্টোবর, ২০২০ ২০:১৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



১ হাজার লোকের বিএমডি পরীক্ষা সম্পন্ন, শেষ হলো ছয় দিনের হেলথ ক্যাম্প

অত্যাধুনিক মেশিনে আলট্রাসাউন্ট পদ্ধতিতে বিনামূল্যে বোন মিনারেল ডেনসিটি (বিএমডি) পরীক্ষার মাধ্যমে বাত ব্যথা ও হাড়ক্ষয় প্রতিরোধে ছয় দিনব্যাপী হেলথ ক্যাম্প শেষ হয়েছে। পঞ্চগড় ও তেঁতুলিয়ার পৃথক পৃথক চারটি স্থানের ছয় দিনের এই হেলথ ক্যাম্পে মোট ১ হাজার লোকের বিএমডি পরীক্ষা করা ও পুষ্টি পরামর্শ প্রদান করা হয়।

বৃহস্পতিবার দিনব্যাপী সর্বশেষ তেঁতুলিয়ার খয়খাট পাড়া নূরানীয়া ও হাফেজিয়া মাদরাসা মাঠে ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে পঞ্চগড় জেলা পরিষদ চত্বর, তেঁতুলিয়ার বেগম খালেদা জিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও শাহাবুদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজে ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় তারুণ্যদীপ্ত অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন 'জাগ্রত তেঁতুলিয়া' এসব ক্যাম্পের আয়োজন করে। এতে সার্বিক সহযোগিতা করছেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। সৌজন্যে নিউজিল্যান্ড ডেইরি প্রডাক্টস বাংলাদেশ লিমিটেড। 

অনুষ্ঠান বাস্তবায়নে সার্বিক সহায়তা করছে জেলা প্রশাসন, জেলা পরিষদ, তেঁতুলিয়া উপজেলা প্রশাসন, তেঁতুলিয়া উপজেলা পরিষদ, তেঁতুলিয়া থানা, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রমুখ প্রতিষ্ঠান। গত ২৩ অক্টোবর পঞ্চগড় জেলা পরিষদ চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে জেলা প্রশাসক ড. সাবিনা ইয়াসমিন এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। হেলথ ক্যাম্পে পুষ্টি পরামর্শ প্রদান করেন নিউজিল্যান্ড ডেইরি প্রডাক্টসের পুষ্টিবিদ রেবেকা সুলতানা রুমা। প্রি-রেজিস্ট্রেশনের ভিত্তিতে ৩০ ঊর্ধ্ব ব্যক্তিরা অংশ নিয়েছেন।

নিউজিল্যান্ড ডেইরি প্রডাক্টস ও এসআইবিএল হাসপাতালের ক্লিনিক্যাল ডায়টিশিয়ান রেবেকা সুলতানা রুমা জানান, ছয় দিনব্যাপী চারটি স্থানে বিএমডি স্ক্রিনিং ক্যাম্পগুলোতে অনেকেরই অস্টিওপেনিয়া, অস্টিওপোরোসিস জাতীয় বাত ব্যথা বা হাড়ক্ষয় রোগ শনাক্ত হয়েছে। কারো কারো সমস্যা গুরুতর।

জাগ্রত তেঁতুলিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ও কালের কণ্ঠের সহসম্পাদক আতাউর রহমান কাবুল জানান, মূলত বাত ব্যথা ও হাড়ক্ষয় রোধে জনসাধারণের মধ্যে জনসচেতনতা তৈরিতেই প্রথমবারের মতো এমন আয়োজনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। কারো হাড়ে কোনো ধরনের ক্ষয় আছে কি-না অথবা ভবিষ্যতে তিনি হাড়ক্ষয়ের ঝুঁকির দিকে যাচ্ছেন কি না-তা জানা গেছে এই বিএমডি পরীক্ষার মাধ্যমে। এই পরীক্ষা রংপুর বা ঢাকায় গিয়ে অনেকের করার সামর্থ্য না থাকায় এ ক্যাম্প আয়োজন অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে। এই পরীক্ষার মাধ্যমে জানতে পেরেছে শরীরে বাত ও ব্যথা কেন হয়? এই হেলথ ক্যাম্পে হাড়ক্ষয়জনিত অনেক জটিল রোগী পাওয়া গেছে। তাদের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের অধিনে বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

বিনামূল্যে চিকিৎসা পরামর্শ দিতে রাজি হয়েছেন ল্যাবএইড হাসপাতালের অর্থোপেডিক বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. এম. আমজাদ হোসেন, বাংলাদেশ অর্থোপেডিক সোসাইটির সভাপতি ও ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল গনি মোল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. ওয়াহিদুর রহমান, নিটোর এর অধ্যাপক ডা. মো. জাহাঙ্গীর আলম, ডা. জি এম জাহাঙ্গীর, ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালের অর্থোপেডিক সার্জন ডা. আবু বক্কর দিপু।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা