kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

স্বজনদের খুঁজে পেল স্মৃতি হারানো তানিয়া

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

২৭ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বজনদের খুঁজে পেল স্মৃতি হারানো তানিয়া

রবিবার দিবাগত মধ্যরাতে পাবনার ভাঙ্গুড়া বড়াল ব্রিজ রেল স্টেশন থেকে উদ্ধার হওয়া তরুণী তানিয়ার পরিবারের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। এরপর সোমবার রাত ৯টার দিকে ওই তরুণীকে তার মামার কাছে হস্তান্তর করা হয়। তানিয়া পার্শ্ববর্তী চাটমোহর উপজেলার রামপুর গ্রামের মৃত মোশারফ হোসেনের মেয়ে। তার মায়ের নাম মালেকা খাতুন।

পুলিশ জানায়, রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে একজন তরুণী ভাঙ্গুড়া বড়াল ব্রিজ রেল স্টেশনে একাকী ঘোরাফেরা করছিল। এ সময় স্টেশনের যাত্রীরা তাকে কোনো কিছু জিজ্ঞাসা করলে সে কোনো উত্তর দেয়নি। এতে সন্দেহ হলে একজন যাত্রী ৯৯৯-এ কল করলে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ সময় পুলিশ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ওই তরুণী নিজের নাম তানিয়া ছাড়া কোনো কিছুই বলতে পারেনি। এরপর ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সসহ পার্শ্ববর্তী থানায় মেয়েটির সন্ধানে বিস্তারিত তথ্য পাঠান। 

এছাড়া ভাঙ্গুড়া থানার ফেসবুক আইডি থেকেও মেয়েটির সন্ধান পেতে প্রচারণা চালানো হয়। এর ওপর কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। এতে নিখোঁজের বিষয়টি মেয়েটির মামা ইসমাইল হোসেনের নজরে আসলে তিনি ভাঙ্গুড়া থানায় যোগাযোগ করেন।

পরে ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ চাটমোহর থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ওই তরুণীকে তার মামা ইসমাইল হোসেনের হাতে তুলে দেন।

তানিয়ার মামা ইসমাইল হোসেন জানান, কিছুদিন আগে বাবা মোশাররফ হোসেন মারা যাওয়ার পরে তানিয়ার মা অন্যত্র বিয়ে করেন। এতে তানিয়া অসুস্থ হয়ে স্মৃতি হারিয়ে ফেলেন। একপর্যায়ে রবিবার থেকে তার ভাগ্নি বাড়ি থেকে হারিয়ে যায়। পরে ফেসবুকের মাধ্যমে ভাগ্নির বিষয়টি জানতে পেরে তাকে থানা থেকে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় তিনি ভাঙ্গুড়া থানার ওসির প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ভাঙ্গুড়া থানার ওসি মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, স্মৃতি হারিয়ে ওই তরুণী ভাঙ্গুড়া রেলস্টেশনের প্ল্যাটফর্মে এলোমেলোভাবে ঘোরাফেরা করছিল। সৌভাগ্যক্রমে ওই তরুণী কোনো দুষ্ট চক্রের হাতে পড়েনি। পুলিশ বিষয়টি জানার সঙ্গে সঙ্গে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এরপর ব্যাপক তৎপরতা চালিয়ে পরিবারের সন্ধান পেয়ে তার মামার কাছে ওই তরুণীকে হস্তান্তর করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা