kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

পেকুয়ায় পৃথক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

২৬ অক্টোবর, ২০২০ ১৯:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পেকুয়ায় পৃথক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

কক্সবাজারের পেকুয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক নারীসহ তিনজন নিহত হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছে আরো চারজন। তাদেরকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

আজ সোমবার বিকেল ৩টার দিকে পেকুয়া-চকরিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের পেকুয়া সদর ইউনিয়নের নন্দীরপাড়ার স্টেশনে দ্রুতগামী ডাম্প ট্রাক ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় অটোচালক ঘটনাস্থলেই নিহত হন এবং আহত হন অটোর পাঁচজন যাত্রী। তন্মধ্যে চমেক হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান এক যাত্রী। অন্যদের একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

অপরদিকে রবিবার রাতে পেকুয়া কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের জেনারেল হাসপাতালের সামনে সিএনজিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় গুরুতর আহত হন পাখি বেগম (৫৫) নামের এক নারী। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে প্রেরণ করেন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে নেওয়ার সময় পথিমধ্যেই তিনি মারা যান। নিহত পাখি বেগম উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বাসিন্দা হলেও স্বামীর পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ। 

এদিকে সোমবার বিকেলে ডাম্পারের সাথে সিএনজি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে মারা যাওয়া দুজনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। তারা হলেন অটোচালক পেকুয়ার মগনামা ইউনিয়নের মগঘোনা গ্রামের মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে আবু তালেব (৩৮) ও কুতুবদিয়া উপজেলার উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের আজিম উদ্দিন সিকদার পাড়ার মৃত গিয়াস উদ্দিনের ছেলে আমিনুর কবির (৩৯)। এ সময় আহতরা হলেন একই এলাকার ছৈয়দ আলমের ছেলে মো. আক্কাস (৪৫), তার কন্যা সোনিয়া আক্তার (১৫), বড়ঘোপ ইউনিয়নের গুলজার পাড়ার আবদুল হান্নানের ছেলে দিদারুল ইসলাম (২৮)। তবে আহত অপর এক যাত্রীর পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

পেকুয়া থানার ওসি মো. সাইফুর রহমান মজুমদার জানান, পৃথক দুর্ঘটনায় তিনজন মারা গেছে বলে শুনেছি। তবে লাশ পাওয়া গেছে একটি। দুর্ঘটনাকবলিত গাড়িগুলো জব্দ করা হয়েছে। আহত চারজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা