kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

বাঘায় শারদীয় দুর্গোৎসবে জেলা প্রশাসক

সব ধর্মের মানুষকে এক সুতোয় গেঁথে দিয়েছেন জাতির জনক

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

২৫ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সব ধর্মের মানুষকে এক সুতোয় গেঁথে দিয়েছেন জাতির জনক

রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, সব ধর্মের মানুষকে এক সুতোয় গেঁথে দিয়েছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর স্বপ্ন ছিল অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার। যেটি বাস্তবায়ন করে চলেছেন তাঁর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা। 

রবিবার রাতে বাঘা উপজেলার নারায়নপুর পূজা মন্ডপে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে সার্বজনীন শারদ শুভেচ্ছা বিনিময় ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন বর্তমান সরকারের উপ-সচিব শ্রী রথীন্দ্রনাথ ও রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ।

বাঘা উপজেলা পূজা মন্ডপ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অপূর্ব কুমার সাহার সঞ্চালনা ও বাবু সুজিত কুমার ওরফে বাকু পান্ডের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক বলেন, জন্ম যেথা হোক না কেন, কর্ম হোক ভালো। আমরা চাই সত্য, ন্যায় ও শান্তি রক্ষার মাধ্যমে সব ধর্মের মানুষকে নিয়ে এক সঙ্গে চলতে। তিনি বলেন, অপশক্তির বিনাশ হবে, সমাজ আলোকিত হবে, আমরা প্রধানমন্ত্রীর কণ্ঠে বলব 'ধর্ম যার-যার দেশ এবং উৎসব সবার'। 

সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বাঘার কৃতি সন্তান ও বিশিষ্ট সমাজসেবক উপ-সচিব রথীন্দ্রনাথ বলেন, আমার ধর্ম মানবতা। আমার কাছে দেশ মানে সব জাতি একই মায়ের সন্তান। আমি এই জনপদের মানুষ হিসাবে প্রতিবছর শারদীয় দুর্গোৎসবে বাড়ি আসার চেষ্টা করি। এরপর এই অঞ্চলের ১০০ জন হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষকে অনুদান দিয়ে থাকলে  ৫০ জন মুসলমানকে দেই।

উক্ত সার্বজনীন শারদ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি বক্তব্যে রাজশাহী পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ বলেন, এ বছর কোনো পূজামন্ডপে আনসার-পুলিশের প্রয়োজন হয়নি। এতে এটাই প্রমাণিত হয় যে, দেশের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি পূর্বের যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালো। আমরা এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।

আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা, রাজশাহী জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহামুদুল হাসান ও মতিউর রহমান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. কামাল হোসেন, চারঘাট সার্কেলের সিনিয়র এএসপি নুরে আলম, বাঘা থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি নজরুল ইসলাম ও বাঘা প্রেস সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ সব সম্প্রদায়ের স্থানীয় সুধীজন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা