kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

বিশ্বনাথে নদীগর্ভে সড়ক, দুর্ভোগে মানুষ

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি   

২৫ অক্টোবর, ২০২০ ১২:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বনাথে নদীগর্ভে সড়ক, দুর্ভোগে মানুষ

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের গবিন্দনগর গ্রাম (দ্বীপবন্ধ) হতে আশুগঞ্জ বাজার পর্যন্ত ইট-সলিং সড়কের বেশিরভাগ অংশ মাকুন্দা নদীর ভয়াবহ ভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে। গত শুক্রবার রাতের কোনো এক সময় এ সড়কের প্রায় ৪৬ মিটার অংশ নদীরগর্ভে চলে যায়। এতে কয়েকটি গ্রামের মানুষ চরম উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন। নদীর ভাঙনের কবলের আতঙ্কে রয়েছেন আশপাশ এলাকার কয়েকটি বাড়ির মানুষ।

জানা গেছে, উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের গবিন্দনগর গ্রাম (দ্বীপবন্ধ) হতে আশুগঞ্জ বাজার পর্যন্ত ইট-সলিং সড়ক রয়েছে। ওই সড়ক দিয়ে প্রায় ১০-১২ গ্রামের মানুষ গাড়িযোগে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করে আসছেন। কিন্তু গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে মাকুন্দা নদীতে পানির স্রোত বেড়ে যায়। এতে নদীর ভাঙনে সড়কের বেশিরভাগ অংশ নদীরগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে এ সড়ক দিয়ে যানবাহান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ এলাকার কয়েকটি গ্রামের মানুষকে এখন পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ।

স্থানীয় লোকজন জানান, জরুরি ভিত্তিতে ভাঙন রোধ করা না হলে পুরো এলাকা বিলীন হয়ে যাবে। ভাঙন বাড়লে মাকুন্দা নদীর গতিপথও পাল্টে যাবে। এর ফলে ভাঙনের মুখে পড়বে এলাকার কয়েকটি বাড়ি।
স্থানীয় বাসিন্দা মনির মিয়া বলেন, মাকুন্দা নদীতে যেভাবে ভাঙন শুরু হয়েছে যেকোনো সময় এলাকার বাড়িঘর ভেসে যাবে। বৃষ্টি হলে নদীতে স্রোত বেড়ে যায়। এলাকার মানুষজন উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে খাজাঞ্চী ইউপি চেয়ারম্যান তালুকদার গিয়াস উদ্দিন বলেন, নদীর কবলে বিলীন হওয়া সড়ক পরিদর্শন করে বিষয়টি উপজেলা প্রশাসন ও সিলেট পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলীকে অবহিত করেছি। দীর্ঘদিন ধরে মাকুন্দা নদীর পাড়ে ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) কামরুজ্জামান বলেন, নদী ভাঙনে সড়ক ধসে যাওয়ার বিষয়টি উপজেলা প্রকৌশলী ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে আলাপ করেছি। 

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী শহীদুজ্জামান সরকার বলেন, পাউবো সিলেটের সহকারি প্রকৌশলী আল-আমিনকে ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করার জন্য পাঠানো হয়েছে। নদী ভাঙন দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন তিনি।   

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা