kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

'ডাক্তার আসছে, এই যে চলে এসেছে'... মায়ের পেটেই সন্তানের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

২৪ অক্টোবর, ২০২০ ১৫:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'ডাক্তার আসছে, এই যে চলে এসেছে'... মায়ের পেটেই সন্তানের মৃত্যু

একাধিক ঘটনায় আলোচিত-সমালোচিত গাজীপুরের কালীগঞ্জ সেন্ট্রাল হাসপাতালে এবার এক নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। অভিযোগ উঠেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় ওই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

উপজেলার বেরুয়া গ্রামের ব্যবসায়ী এনামুল কবির শনিবার অভিযোগ করে সাংবাদিকদের জানান, তার স্ত্রী আফসানা আক্তারের (৩০) সন্তান প্রসবের নির্ধারিত তারিখ ছিল ৫ নভেম্বর। গতকাল শুক্রবার সকালে হঠাৎ করে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কালীগঞ্জের সেন্ট্রাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। রোগীর অবস্থা খারাপ থাকলেও হাসাপতাল কর্তৃপক্ষ গাফিলতি করে তার স্ত্রীকে বসিয়ে রাখে। 'ডাক্তার আসছে', 'এই যে চলে এসেছে', 'আর কয়েক মিনিট' এসব বলে সময় নষ্টের পর বিকেল ৪টার দিকে তার স্ত্রীর অপারেশন করা হয়। অপারেশনের পর নবজাতকের হৃদযন্ত্র সচল ছিল বলে দাবি তার। কিন্তু কিছুক্ষণ পর তার শিশু সন্তান মারা যায়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবহেলা করে দেরিতে অপারেশন করায় নবজাতকের মৃত্যু হয় অভিযোগ তার।

স্থানীয়রা জানান, এর আগে গত মাসে সিজারিয়ান অপারেশনের সময় ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতি দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছেন। এ ছাড়াও গত বছর এই হাসপাতালে চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসায় একজন শিশু ও একজন মায়ের মৃত্যু হয়। এতো ঘটনার পরও হাসপাতালটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন।

কালীগঞ্জ সেন্ট্রাল হাসপাতালের ব্যবস্থাপক মহিউদ্দিন মিরাজ বলেন, 'প্রসূতি আফসানা আক্তার মৃত সন্তান প্রসব করেন। উল্টো তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্ন করেন, কে বলেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অবহেলায় নবজাতক মারা গেছে? অপরারেশন তো ডাক্তার করেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নয়।' 

আফসানার গাইনি চিকিৎসক সানজিদা পারভিন বলেন, রোগী ব্যাথা নিয়ে হাসাপাতালে আসলেও তখন তার অতিরিক্ত প্রেসার ও ডায়াবেটিস ছিল। হাসপাতালে আনার পর নবজাতক মায়ের গর্ভে পায়খানা করে দেয়। নবজাতকের অবস্থাও খারাপ ছিল।

কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মোহাম্মদ ছাদেকুর রহমান আকন্দ বলেন, এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা