kalerkantho

মঙ্গলবার । ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৪ নভেম্বর ২০২০। ৮ রবিউস সানি ১৪৪২

বিস্কুটের লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ

রক্তাক্ত শিশুটি কাঁদতে কাঁদতে মাকে বলল বৃদ্ধের ধর্ষণকাণ্ড...

নিজস্ব প্রতিবেদক, নোয়াখালী   

২৩ অক্টোবর, ২০২০ ২১:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রক্তাক্ত শিশুটি কাঁদতে কাঁদতে মাকে বলল বৃদ্ধের ধর্ষণকাণ্ড...

প্রতীকী ছবি

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নে বিস্কুটের লোভ দেখিয়ে সাত বছর বয়সী এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত চর হাছান গ্রামের আব্দুল হক কাজী (৫৮) পলাতক রয়েছে। গুরুত্বর অবস্থায় শিশুটিকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার রাত পর্যন্ত ধর্ষককে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। তবে তাকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ। অভিযুক্ত আব্দুল হক কাজী চরহাছান গ্রামের দায়মুদ্দিন কাজীর ছেলে আব্দুল হক কাজী।

শিশুটির পরিবার ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার দুপুরে শিশু শ্রেণির ওই ছাত্রী তাদের পাশের বাড়ির শিশুদের সাথে খেলাধুলা করছিল। এ সময় তার প্রতিবেশী আবদুল হক কাজী শিশুটিকে বিস্কুট দেওয়ার কথা বলে তার বসত ঘরে নিয়ে যায়। ঘরের দরজা বন্ধ করে শিশুটির মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে আব্দুল হক। এ সময় এ ঘটনা কাউকে বললে তাকে হত্যা করার হুমকি দেয়। রক্তাক্ত শিশুটি কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি গিয়ে বিষয়টি তার মাকে জানায়। পরে শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য (মেম্বার) ফজিলাতুন নেসাকে জানালে তিনি বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসা করে দেওয়া হবে বলে তাদের জানান। বৃহস্পতিবার রাতে শিশুটির বাবা চরজব্বার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম মাস্টারের কাছে ঘটনা জানালে তিনি বৃহস্পতিবার রাতেই চরজব্বার থানায় শিশুটি ও তার পরিবারকে পাঠিয়ে দেন। রাতেই মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে আব্দুল হক কাজীকে আসামি মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে জানতে নারী ইউপি সদস্য ফজিলাতুন নেসার ব্যবহৃত মোবাইলে কল করলে তার স্বামী ফোন রিসিভ করেন। তিনি জানান, তার স্ত্রী (মহিলা মেম্বার) এখন বাড়িতে নেই পরে কথা বলবেন।

চরজব্বার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম জানান, বিষয়টি নারী ইউপি সদস্যকে জানানোর পরও তিনি ঘটনাটি সালিস বৈঠকের মাধ্যমে মীমাংসা করার কথা বলে শিশুটির পরিবারকে মামলা করতে দেননি। পরে রাতে তিনি বিষয়টি শুনে সাথে সাথে তাদের চরজব্বার থানায় পাঠিয়ে ওসিকে মামলা নেওয়ার অনুরোধ করেন।

চরজব্বার থানার ওসি মো. সাহেদ উদ্দিন জানান খবর পেয়ে আমরা শিশুটিকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছি। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক পলাতক রয়েছে। তবে তাকে দ্রুত গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা