kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

নবীনগরে পুলিশি বাধায় যুবদলের দুই গ্রুপের সভা নিয়ে উত্তেজনা

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি   

২৩ অক্টোবর, ২০২০ ১১:১২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নবীনগরে পুলিশি বাধায় যুবদলের দুই গ্রুপের সভা নিয়ে উত্তেজনা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় পুলিশি বাধা ও ধাওয়ার পর যুবদলের সাংগঠনিক ও কর্মীসভা করা নিয়ে দুই গ্রুপে উত্তেজনা বিরাজ করছে। আজ শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) বেলা ১১ টায় স্থানীয় যুবদলের বিবদমান দুই গ্রুপের উদ্যোগে পৃথক স্থানে ওই সাংগঠনিক সভা ও কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক কার্যক্রম চাঙ্গা করার লক্ষ্যে আজ শুক্রবার পৃথক দুটি স্থানে দুটি সাংগঠনিক ও কর্মী সভা আহবান করে যুবদলের বিবদমান দুই গ্রুপ।

উপজেলা যুবদলের আহবায়ক মফিজুর রহমান মুকুলের নেতৃত্বাধীন একটি গ্রুপ নবীনগর মহিলা কলেজ প্রাঙ্গণে এবং উপজেলা যুবদলের ১ নম্বর যুগ্ম আহবায়ক আশরাফ হোসেন রাজুর নেতৃত্বাধীন অপর গ্রুপটি বিএনপির স্থানীয় দলীয় কার্যালয়ে সাংগঠনিক সভা আহবান করে।

নেতাকর্মী জানান, যুবদলের ওই সাংগঠনিক ও কর্মীসভায় যোগ দিতে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে নবীনগর ডাকবাংলোতে এসে পৌঁছান কেন্দ্রীয় যুবদলের সহসভাপতি ও কুমিল্লা অঞ্চলের প্রধান জাকির হোসেন সিদ্দিক, কেন্দ্রীয় যুবদলের আলী আশরাফ, চট্টগ্রাম অঞ্চলের বিভাগীয় সহ সভাপতি আশিকুর রহমান ওয়াসিমসহ কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতৃববৃন্দ। এসময় বিবদমান স্থানীয় যুবদলের দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা গগনবিদারী শ্লোগান দিয়ে নেতাদের স্বাগত জানান।

স্থানীয় যুবদলের একাধিক নেতাকর্মী জানান,'যুবদলের বিবদমান এই দুই গ্রুপের মধ্যে মফিজুর রহমান মুকুলের নেতৃত্বাধীন গ্রুপটিকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সফিকুল ইসলাম সফিক এবং আশরাফ হোসেন রাজুর নেতৃত্বাধীন গ্রুপটিকে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনিছুর রহমান মঞ্জু পেছন থেকে আলাদা আলাদাভাবে তাঁদের অনুসারী কেন্দ্রীয় ও জেলার নেতাদের নিয়ে নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতিতে ওইসময় জড়ো হওয়া নেতাকর্মীদের পুলিশ ধাওয়া ও মৃদু লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরে পুলিশের পক্ষ থেকে কোন ধরণের সভা সমাবেশ করা যাবেনা বলে যুবদল নেতৃবৃন্দকে সাফ জানিয়ে দেয়া হয়। এ ঘটনার পর আজকের সাংগঠনিক সভা করা নিয়ে দুই গ্রুপেই উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে যুবদলের আহবায়ক মফিজুল রহমান মুকুল আজ সকালে বলেন,"সভা স্থগিত করা হয়নি। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এখনো নবীনগরে আছেন। কিন্তু পুলিশ সভা করার অনুমোদন না দেওয়ায় কী করা যায় আমরা সেটি নিয়ে ঘরোয়া বৈঠকে বসেছি।'

অপর গ্রুপের নেতা যুগ্ম আহবায়ক আশরাফ হোসেন রাজুকে বারবার ফোন দিলেও তিনি ফোন না ধরায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নবীনগর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রুহুল আমীন সকালে কালের কণ্ঠকে বলেন,"করোনার কারণে সভা করার অনুমতি দেয়া হয়নি। এরপরও যদি কেউ সভা করতে চায়, তাহলে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।"

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা