kalerkantho

বুধবার । ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৫ নভেম্বর ২০২০। ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

পাশের বাড়িতে টিভি দেখতে গেল মেয়েটি, পরদিন হাত-পা-মুখ বাঁধা লাশ ভাসল খালে

ডামুড্যা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০২০ ১২:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাশের বাড়িতে টিভি দেখতে গেল মেয়েটি, পরদিন হাত-পা-মুখ বাঁধা লাশ ভাসল খালে

শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যায় হাত, পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় খালে ভাসমান এক কিশোরীর (১৫) লাশ উদ্ধার করেছে ডামুড্যা থানা পুলিশ। উপজেলার ডামুড্যা পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের আলা উদ্দিন ছৈয়ালের মেয়ে কাজল আক্তার। গতকাল রাতে টিভি দেখতে যাওয়ার কথা বলে কাজল ঘর থেকে বের হয়। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

ডামুড্যা থানা পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, প্রতিদিন রাতে টিভি দেখার জন্য পাশের বাড়িতে যেত কাজল। গতকালও টিভি দেখতে যাওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বের হয় কাজল। কিন্তু অনেক রাত হলেও ফিরছিল না কাজল। পরে তাকে খুঁজতে শুরু করে পরিবারের লোকজন। যে বাড়িতে কাজল টিভি দেখতে যায় সেখানে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। পরে আত্মীয়-স্বজনদের কাছে খোঁজ নেয় পরিবার। সারারাত খোঁজ করেও পরিবারের লোকজন তার কোনো সন্ধান পায়নি। সকালে বাড়ির পাশে খালের ভেতর একটি লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। পরে কাজলের মা তার লাশ শনাক্ত করে। মেয়েটির হাত ও পা ওড়না দিয়ে বাঁধা ছিল। তার মুখ গামছা দিয়ে বাঁধা ছিল। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

আলা উদ্দিন ছৈয়াল বলেন, আমি রাতে নামাজ পড়ে এসে কাজলকে ঘরে পাইনি। পরে জানতে পারি সে পাশের বাড়িতে টিভি দেখতে গেছে। রাতে কাজলের খোঁজ শুরু করি। রাতে আমি আমার মেয়েদের বাড়িতেও খবর নেই। ওখানে যায়নি সে। পরে সকালে আবার খোঁজ করি। ওর মা খালের পাশে গিয়ে দেখে মেয়ের হাত, পা ও মুখ বাঁধা। ওর লাশ ওপুর হয়ে রয়েছে।

ডামুড্যা থানা ওসি (তদন্ত) এমারত হোসেন বলেন, আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছি। কিভাবে মেয়েটি মারা গেল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এখনও থানায় কোনো অভিযোগ হয়নি। অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা