kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

অধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগের মারামারি

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০২০ ০১:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুরে ছাত্রলীগের মারামারি

লক্ষ্মীপুরে অধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে তিন নেতা আহত হন। তাঁরা হলেন- মো.কামরুল ইসলাম, রায়হান পারভেজ অন্তর ও মো. রাকিব হোসেন। আহতরা সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক কাজী মামুনুর রশিদ বাবলুর অনুসারী।

বুধবার (২১ অক্টোবর) রাত ৯টার দিকে উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের লতিফপুর গ্রামে এ মারামারির ঘটনা ঘটে। আহতরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাঁদের মাথা, মুখসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাদের চিহ্ন রয়েছে। 

দলীয় সূত্র জানায়, স্থানীয়ভাবে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ সভাপতি এম মাসুদ ও সাবেক সভাপতি ওমর ফারুক আরজুর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। দুজনই চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক কাজী বাবলুর অনুসারী।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় চন্দ্রগঞ্জ নিউ মার্কেটের সামনে মাসুদ ও আরজুর অনুসারীদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। পরে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কাজী বাবলু তাদের মধ্যে সমঝোতা করে দেন। কিন্তু লতিফপুর এলাকায় রাতে ছাত্রলীগ নেতা এম মাসুদের অনুসারী এম সজীব, হৃদয় পাটওয়ারী ও মাসুদ কয়েকজন সহযোগীকে নিয়ে ওই তিনজনকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করেন। আহতরা ছাত্রলীগ নেতা আরজুর অনুসারী।

খবর পেয়ে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কাজী মামুনুর রশিদ বাবলু সদর হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। তিনি জানান, তুচ্ছ ঘটনায় নেতাকর্মীরা মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে। ঘটনাটি মীমাংসার চেষ্টা করছি।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল করিম নিশান বলেন, ঘটনাটি কেউ আমাকে জানায়নি। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন বলেছেন, ছাত্রলীগের দু'গ্রুপের মারামারির ঘটনা শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা