kalerkantho

সোমবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৩০ নভেম্বর ২০২০। ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে পাকিস্তানের দাসত্ব করতে হতো : তোফায়েল

ভোলা প্রতিনিধি   

২১ অক্টোবর, ২০২০ ২১:৫৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে পাকিস্তানের দাসত্ব করতে হতো : তোফায়েল

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও ভোলা ১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে বলেছেন, জাতীর জনকের জন্ম না হলে আমরা আজও পাকিস্তানের দাসত্ব বরণ করে থাকতাম। সারা জীবন তিনি আওয়ামী লীগের জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন। বাংলার মানুষের অধিকার প্রাতিষ্ঠা করার জন্য আওয়মী লীগকে একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক দলে রূপান্তরিত করে ছয় দফা দিয়েছিলেন। ৬৯ এর গণঅভ্যুস্থান করে বঙ্গবন্ধুকে কারাগার থেকে মুক্ত করে ৭০ এর নির্বাচনে আমরা বিজয়ী হয়েছিলাম। 

আজ বুধবার দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে টেলিকনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মেনে কমিটি করতে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতি নির্দেশনা দিয়ে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ৭৫ এর জাতীর জনককে হত্যার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তখন নির্বাসনে ছিলেন। সেখানে বসেও তিনি দলেন জন্য কাজ করেছেন। ৮১-তে যখন আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেছি তখন তিনি বাংলার মাটি ছুয়ে বলেছিলেন আমি এদেশে ক্ষমতার জন্য আসিনি। আমি এসেছি বাংলার দুখী মানুষের জন্য ও মানুষের অধিকার রক্ষার জন্য। তিনি তার কথা রেখেছেন। 

সাবেক ডাকসুর ভিপি আরো বলেন, শেখ হাসিনার হাতে আমরা আওয়ামী লীগের পতাকা তুলে দিয়েছিলাম বলেই বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার হয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধীদের বিচার হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল এটা বাংলার মানুষের স্বাধীনতা, আরেকটা এদেশের মানুষকে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত করা।  সেই স্বপ্ন তারই কন্যার হতে বাস্তবায়ন হয়েছে।

তিনি সংগঠনকে গতিশীল করতে দিকনির্দেশনামূলক হিসেবে বলেন, অনেকেই আছেন সভাপতি-সম্পাদক হওয়ার যোগ্য। কিন্তু সবাইকে সভাপতি-সম্পাদক বানানো যায় না। তাই সহ-সভাপতি, যুগ্ন-সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদকসহ অন্যান্য পদে বাকীদের স্থান দেওয়া যায়। সকলের সাথে পরামর্শ করে কমিটি গঠন করতে হবে।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মিয়া মো. সিরাজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক আব্দুল মমিন টুলু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. মোশারেফ হোসেন, সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদার, জেলা আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম নকিব, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব প্রমূখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা