kalerkantho

রবিবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৯ নভেম্বর ২০২০। ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

জামালপুরে এক দিনে কলেজছাত্রীসহ তিনজনের লাশ উদ্ধার

জামালপুর প্রতিনিধি   

২১ অক্টোবর, ২০২০ ১৫:১৭ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জামালপুরে এক দিনে কলেজছাত্রীসহ তিনজনের লাশ উদ্ধার

জামালপুর জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আজ বুধবার এক কলেজছাত্রীসহ তিনজনের লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। তাদের মধ্যে মেলান্দহ থেকে এক কলেজছাত্রী ও জামালপুর শহরের ছনকান্দা থেকে এক শ্রমিকের লাশ ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় এবং ইসলামপুর থেকে অজ্ঞাতপরিচয় শিশুর গলিত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ বুধবার সকালে জামালপুর পৌরসভার ছনকান্দা এলাকায় ওমর আলীর বাড়ির পাশে গাছে ঝুলে থাকা নজরুল ইসলাম (৩২) নামের এক শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। নিহত ওই শ্রমিক ওমর আলীর মেয়ে রেখা বেগমের স্বামী এবং তিনি শেরপুর সদর উপজেলার বলাইয়ের চরের দুলাল মিয়ার ছেলে। পেশায় তিনি তুলার কারখানার শ্রমিক ছিলেন। গতকাল মঙ্গলবার রাতে তিনি শ্বশুরবাড়ি ছনকান্দায় এসে জানতে পারেন স্ত্রী তাঁকে তালাক দিয়েছে। আজ বুধবার ভোররাতে ওই বাড়ির পাশে একটি গাছের সঙ্গে গলায় রশি বাঁধা ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পরে সদর থানা পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে থানায় মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

অপর দিকে গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাতে জেলার মেলান্দহ উপজেলার ফুলকোচা ইউনিয়নের তেলিপাড়া গ্রাম থেকে আকলিমা বেগম (১৭) নামের এক কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার করে আজ বুধবার সকালে জামালপুর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে মেলান্দহ থানা পুলিশ। ওই মেয়েটি উপজেলার হাজরাবাড়ী সিরাজুল হক ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। তার দরিদ্র কৃষক বাবা আলেফ উদ্দিন কালের কণ্ঠকে জানান, ঘরে আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না বেঁধে তাঁর মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। মেয়েটি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ত এবং লেখাপড়ার পাশাপাশি বাড়িতেই নিজের সেলাই মেশিনে জামা-কাপড় বানানোর কাজ করে বাড়তি টাকা উপার্জন করত। তার আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে তার বাবা কিছুই বলতে পারছেন না। এ ব্যাপারে মেলান্দহ থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

এদিকে আজ বুধবার সকালে জেলার ইসলামপুর উপজেলার চিনাডুলি ইউনিয়নের যমুনা নদীতে ভাসমান আনুমানিক ১০ বছর বয়সের অজ্ঞাতপরিচয় এক শিশুর গলিত লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে ইসলামপুর থানা পুলিশ। লাশটি কয়েক দিন আগের বিধায় বিকৃত হয়ে গেছে। দূরে কোথাও হয়তো নদীতে পড়ে গেছে কিংবা তাকে হত্যা করে কেউ নদীতে ফেলে দিতে পারে বলে পুলিশ ও স্থানীয়রা ধারণা করছেন। এ ব্যাপারে ইসলামপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।

জেলার ইসলামপুর, মেলান্দহ ও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) কার্যালয় সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা