kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

সোনারগাঁয় জনপ্রতিনিধিকে গণধোলাইয়ে বিব্রত নারায়ণগঞ্জ এসপি

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০২০ ২২:১২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সোনারগাঁয় জনপ্রতিনিধিকে গণধোলাইয়ে বিব্রত নারায়ণগঞ্জ এসপি

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে প্রকাশ্যে আমিনুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা মামলায় গ্রেপ্তার হওয়া ডাকাত সর্দার ও ১০ মামলার আসামি হাবিবুর রহমান হাবু মেম্বার ওরফে ডাকাত হাবু ও ফারুক মেম্বারে পক্ষে ওপেন হাউস-ডে সাফাই গাইতে গিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম (পিপিএম বার) এর কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন সোনারগাঁ উপজেলার বারদী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য নজরুল ইসলাম মেম্বার।

এ সময় পুলিশ সুপার সোনারগাঁ থানা কর্তৃক আয়োজিত আইন শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভায় ওই ইউপি সদস্য ও বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কঠোর সমালোচনা করেন। 

ওপেন হাউস-ডে তে আসা সাধারণ মানুষ জানান, উপজেলার বারদী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় দাঙ্গা-হাঙ্গামা, ভূমি দখল, জুয়া আসর বসানো, মাদক ব্যবসা পরিচালনা, অবৈধ বালুকাটা ও বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনায় ওই এলাকার কয়েকজন জনপ্রতিনিধির সম্পৃক্ততা রয়েছে।

সাধারণ মানুষের মতামতের পর পুলিশ সুপার বলেন, আমি নারায়ণগঞ্জে যোগদান করার পর থেকেই দেখছি সোনারগাঁয়ের সবচে দাঙ্গাবাজ এলাকা বারদী। তিনি বলেন, অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে যারাই সম্পৃক্ত রয়েছেন তারা এখনও সময় আছে ভালো হয়ে যান। আমি ওসিকে নির্দেশ দিচ্ছি, যারা বারদী ইউনিয়নে দাঙ্গা-হাঙ্গামা, অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি ও আইন শৃঙ্খলা বিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত হচ্ছে তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে। যখনই কোনো আইন বিরোধী ঘটনা ঘটবে তখনই তাৎক্ষণিক জড়িতদের গ্রেপ্তার করে থানা হাজতে ঢুকিয়ে দিন। হোক সে চেয়ারম্যান, হোক সে মেম্বার, জনপ্রতিনিধি বা অন্য কোনো ক্ষমতাসীন ব্যক্তি। তিনি আরো বলেন, জনগণের যানমাল নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব পুলিশের। জনগণ কষ্টে থাকবে আর পুলিশ নীরব থাকবে এটা হতে পারেনা। 

নজরুল মেম্বার হাবু ডাকাত ও ফারুক মেম্বারের উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করার পর বলেন, মানুষ যদি জনপ্রতিনিধিদের মারধর করে তাহলে বুঝতে হবে ওই এলাকায় জনপ্রতিনিধিরা কতটুকো ভালো। নিশ্চয়ই ওই এলাকায় জনপ্রতিনিধিরা এমন কোনো অপকর্ম করেছে যার কারণে তাদের প্রতি সাধারণ মানুষের কোনো আস্থা নেই। মানুষের মনে তাদের বিরুদ্ধে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। আইন নিজের হাতে তুলে নেয়া অপরাধ। পুলিশ কোনো অপরাধীকে শেল্টার দিতে নয়, অপরাধীকে আইনের আওতায় আনতে কাজ করবে। সকলের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার, পুলিশ হবে জনতার।

উল্লেখ্য, গতকাল রবিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার, পুলিশ হবে জনতার' এ স্লোগানকে সামনে রেখে আইন সোনারগাঁ থানা পুলিশের আয়োজনে ওপেন হাউস-ডে অনুষ্ঠিত হয়।

সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলামের সভাপতিতে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম (পিপিএম বার)।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) টিএম মোশাররফ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ-সার্কেল) মো. খোরশেদ আলম এবং সোনারগাঁ থানা কমিউনিটি পুলিশ, সাংবাদিক, সুশীর সমাজ, সাধারণ জনতাসহ সোনারগাঁ থানা পুলিশের সদস্যবৃন্দ।

আসন্ন সোনারগাঁ পৌরসভা নির্বাচন শতভাগ অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে পুলিশের পক্ষ থেকে সকল প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানান এসপি। যে কোনো অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড প্রতিরোধ করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা