kalerkantho

শনিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৭। ২৪ অক্টোবর ২০২০। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ছেলের নির্যাতন ও অপমানে বাবার আত্মহত্যার চেষ্টা

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৬:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ছেলের নির্যাতন ও অপমানে বাবার আত্মহত্যার চেষ্টা

নেশার টাকা না দেওয়ার দীর্ঘদিন ধরে পিতা মাহমুদ আলীকে শারীরিক নির্যাতন ও বিভিন্নভাবে অপমান করে আসছিল ছেলে সুমন মিয়া। গ্রামবাসী একাধিকবার সালিস-বিচার করলেও ছেলে মারধর বন্ধ করেনি। বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় নেশাখোর ছেলে আবারও বাবাকে নির্যাতন করলে রশি দিয়ে রাস্তার পাশে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন নির্যাতিত মাহমুদ আলী। এলাকাবাসী দেখে তাঁকে নিবৃত্ত করেন। ঘটনাটি ঘটে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের জামিরকোনা গ্রামে। এ ঘটনার পর নেশাগ্রস্ত ছেলে সুমন মিয়া রাতেই বাড়ি থেকে পালিয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার জামিরকোনা গ্রামের মাহমুদ আলী একজন দরিদ্র কৃষক। কৃষিকাজ করে সংসার চালান। ছেলে সুমন মিয়া লেখাপড়া বাদ দিয়ে নেশায় জড়িয়ে পড়ে। বাবা মাহমুদ আলী ছেলেকে শাসন করলে তাঁর স্ত্রী ও ছেলে মিলে মারধর করেন। দীর্ঘদিন ধরে ছেলের এমন কর্মকাণ্ডে এলাকাবাসী একাধিকবার সালিস-বিচার করলেও কোনো কাজ হয়নি। প্রতিনিয়ত নেশার টাকার জন্য বাবাকে নানাভাবে নির্যাতন করে সুমন মিয়া। 

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টায় ছেলে সুমন মিয়া নেশার টাকার জন্য পিতা মাহমুদ আলীকে পেটালে তিনি আদমপুর সড়কের একটি গাছে আত্মহত্যার প্রস্তুতি নেন। এ সময় রাস্তা দিয়ে যাওয়ার পথে এলাকাবাসী দেখে মাহমুদ আলীকে আত্মহত্যার পথ থেকে ফিরিয়ে আনেন। এদিকে বাবা আত্মহত্যার চেষ্টার খবর শুনে রাতেই সুমন মিয়া বাড়ি থেকে পালিয়েছে।

নির্যাতিত মাহমুদ আলী বলেন, ছেলে আমাকে তার মায়ের সহযোগিতায় প্রায়ই মারধর করে। তাই কষ্টে আত্মহত্যা করতে চাচ্ছিলাম।

স্থানীয় ইউপি সদস্য রুপেন্দ্র সিংহ বলেন, ছেলেটা খারাপ। বাবাকে মারধর করার বিষয়ে একাধিকবার বিচার করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আরিফুর রহমান বলেন, আমাদের কাছে এ ধরনের কোনো অভিযোগ আসেনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা