kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

তাড়াশে ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের সরকারের দেওয়া ভূমি বেদখল

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২১:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তাড়াশে ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের সরকারের দেওয়া ভূমি বেদখল

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের সরকারের দেওয়া ভূমি প্রভাবশালীরা বেদখল করে নিয়েছে। এ নিয়ে তারা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বারুহাস গ্রামের ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধা মরহুম গাজী আলী আশরাফ খানের স্ত্রী আলতাফুননেছা ও দিঘরীয়া গ্রামের গাজী সিদ্দিকুর রহমান ২১-৪-২০১৪ তারিখে ১৩৯৬ এবং ১৩৯৭ নং দলিল মুলে ৪৫ শতাংশ জমি সরকার কর্তৃক প্রাপ্ত হয়ে তাদের নিজ নামে নামজারি করে হালনাগাদ সরকারের রাজস্ব প্রদান করেন। কিন্তু সরকারি বরাদ্দ অমান্য করে সড়াবাড়ী গ্রামের মৃত খন্দকার আবু বক্কারের ছেলে আরিফুল ইসলাম ও তার দুই ভাই খন্দকার আলাল উদ্দিন ও খন্দকার দুলাল উদ্দিন জোড় করে বেদখল দিয়েছে। সরকারের বরাদ্দকৃত জমি হালনাগাদ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার জমি ভোগ করতে পারছেন না।

তারা অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন করলে তিনি সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) বিষয়টি দেখার জন্য দায়িত্ব দেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) তদন্তের জন্য কানুনগো ও বস্তুল সহকারী ভূমি কর্মকর্তাকে তদন্তে পাঠান। তদন্ত কালে কানুনগো ও বস্তুল সহকারী ভূমি কর্মকর্তা উভয় পক্ষের কাগজ পত্র দেখে বিবাদীকে নালিশি ভূমিতে চাষাবাদ করতে নিষেধ করেন। কিন্তু সরকারি নিষেধ অমান্য করে আরিফুল ইসলাম ও তার দুই ভাই খন্দকার আলাল উদ্দিন ও খন্দকার দুলাল উদ্দিন জোড় করে জমিতে ধানের চারা রোপণ করছেন।

এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের লোকজন প্রতিবাদ করতে গেলে তাদের বিরুদ্ধে ওই ভূমিগ্রাসীরা থানায় মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানি করছে।

বর্তমানে সরকারের বরাদ্দকৃত জমি দলিল মূলে ও সরকারি রাজস্ব দিয়েও ভোগ করতে না পারায় মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিকুর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ৯ মাস যুদ্ধ করে ৩০ লক্ষ শহীদদের রক্তের বিনিময়ে এই দেশ স্বাধীন করে যদি মুক্তিযোদ্ধার এই দশা হয় তাহলে এই দেশের মানুষ দাঁড়াবে কোথায়।

তাড়াশ থানার ওসি মাহবুবুল আলম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তবে এ বিষয়টি সহকারী কমিশনার (ভূমি) বিষয়টি দেখবেন। আইন শৃংখলার যেন অবনতি না হয় সে জন্য পুলিশ পাঠিয়ে উভয় পক্ষকে জমিতে না যাওয়ার জন্য নিষেধ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ওবায়দুল্লাহ বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা