kalerkantho

রবিবার। ১৬ কার্তিক ১৪২৭ । ১ নভেম্বর ২০২০। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

১৮ দিনেও রেকর্ড হয়নি মামলা

বিউটিশিয়ানকে নির্যাতন করে চুল কেটে দিলেন সাবেক স্বামীর স্ত্রী!

নাটোর প্রতিনিধি   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:২১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিউটিশিয়ানকে নির্যাতন করে চুল কেটে দিলেন সাবেক স্বামীর স্ত্রী!

রোজিনা খাতুন (৩২) নামে এক বিউটিশিয়ানকে পার্লারের দরজা বন্ধ করে নির্যাতনের পর তার মাথার চুল কেটে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাবেক স্বামীর স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে নির্যাতন করেছে। গত ৮ সেপ্টেম্বর নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার আহম্মেদপুর শওকত প্লাজায় অবস্থিত রোজী বিউটি পার্লারে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। ঘটনার ১৭ দিন অতিক্রম হলেও পুলিশ মামলাটি রেকর্ড করেনি।

নির্যাতনের শিকার রোজিনা খাতুন রোজী নাটোর সদর উপজেলার চৌরি গ্রামের আশরাফুল ইসলাম কাজলের মেয়ে। তিনি জানান, গত ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় তিনি শওকত প্লাজায় অবস্থিত রোজী বিউটি পার্লার বন্ধ করার জন্য গোছগাছ করছিলেন। তখন হঠাৎ করে সেখানে উপস্থিত হয় তালাকপ্রাপ্ত স্বামী বনপাড়া বাজারের আল আমিন হোটেলের মালিক আলমগীর হোসেন আলমের স্ত্রী পান্না খাতুন। তার সাথে স্বামীর ছোট ভাই ফারুক হোসেন ও তাঁর স্ত্রী হীরা বেগমও ছিলেন। তারা বিউটি পার্লারের দরজা বন্ধ করে রোজীকে বেধড়ক মারপিট করে এবং তার মাথার চুল কেটে দেয়। কিছুক্ষণ পর টেনেহিঁচড়ে বাইরে নিয়ে পার্লারের সামনের ফেলে ৫-৬ জন মিলে তার ওপর নির্যাতন চালায়। পরে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায়।

ঘটনার দিনই নির্যাতিত নারী তালাকপ্রাপ্ত স্বামী আলমগীর হোসেন আলম, স্ত্রী পান্না খাতুনসহ সাত জনের বিরুদ্ধে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করতে যান। সে সময় সেখানকার কর্তব্যরত এক পুলিশ অফিসার আলমগীর এবং ফারুককে বাদ দিয়ে দায়সারা একটি অভিযোগ লিখে রোজিনার স্বাক্ষর নেন। কিন্তু ১৮ দিনেও অভিযোগটি মামলা আকারে গ্রহণ করা হয়নি বলে জানা গেছে।

নির্যাতনের শিকার এই নারী অভিযোগ করেন, বনপাড়া বাজারে বিউটি পার্লার থাকাকালে হোটেল ব্যবসায়ী আলমের সঙ্গে তার সর্ম্পক হয়। তারা গত বছরের নভেম্বরে দুজন নিজেদের পছন্দে বিয়ে করেন। তাদের এই বিয়ে আলমের পরিবার মেনে নিতে না পারায় চারমাস আগে আলম তাকে তালাক দেন। তালাকের পরে তিনি বনপাড়া থেকে ব্যবসা গুটিয়ে আহম্মেদপুর বাসস্ট্যান্ডে পার্লার চালু করেন। তালাকের পর থেকে তাদের কোন যোগাযোগ নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

রোজীর সাবেক স্বামী আলম বলেন, রোজিনাকে মারপিট এবং চুলকাটা ঠিক হয়নি। ঘটনার পর থেকে আমার স্ত্রী বাসায় আসেনি। রোজিনা মেয়েটা বড় অসহায়। আমি বিষয়টি পারিবারিক ভাবে মীমাংসার চেষ্টা করছি।

বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলিপ কুমার দাস জানান, অভিযোগ পেয়েছি। পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। তদন্তে সত্যতা পেলে মামলা গ্রহণ করা হবে।

বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনর্চাজ মো. তহিদুল ইসলাম জানান, ৪ মাস আগে রোজিনার সাথে আলমগীরের ছাড়াছাড়ি হয়। পরে পুনরায় তাদের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন হলে আলমগীরের প্রথম স্ত্রীসহ কয়েকজন মহিলা গিয়ে রোজিনাকে মারপিট করে চুল কেটে দেয়। বড়াইগ্রাম থানায় এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ দাখিল করে। অভিযোগটির তদন্ত চলছে। এখনো মামলা রেকর্ড হয়নি। মামলা রেকর্ড হলে আসামিদের নাম অন্তর্ভুক্ত করা যাবে। তখন অপরাধ অনুযায়ী ধারা বসানো যাবে।

নাটোর জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মালেক শেখ জানান, একজন নারীকে প্রকাশ্যে এমন মধ্যযুগীয় বর্বর নির্যাতন কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। নির্যাতিতাকে আমাদের পক্ষ থেকে সব ধরনের আইনি সহায়তা দেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা