kalerkantho

রবিবার। ১৬ কার্তিক ১৪২৭ । ১ নভেম্বর ২০২০। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ভাঙন আতঙ্ক

মোংলা ও রামপাল (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ভাঙন আতঙ্ক

অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে সরকারের কড়া নির্দেশনা থাকলেও বাগেরহাটের রামপাল ও মোংলা উপজেলায় বন্ধ হচ্ছে না বালু উত্তোলন। হুমকির মুখে পড়ছে পরিবেশ। বালু উত্তোলন বন্ধে মাঠ প্রশাসনের কোনো পদক্ষেপ না থাকায় দিন দিন বেড়েই চলেছে বালু উত্তোলনকারিদের সংখ্যা।

জানা যায়, রামপাল ও মোংলা উপজেলার ১৬ ইউনিয়নে অন্তত শতাধিক ছোট ড্রেজার দিয়ে সরকারি নদী-খাল থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে একটি চক্র। উত্তোলন করা ওই বালু কম দামে কিনে মানুষ নীচু জমি, পুকুর, পুরাতন বদ্ধ জলাশয়, কাঁচারাস্তা ভরাট করছে।

রামপাল ও মোংলা উপজেলায় কোথাও বালু মহল নেই অথচ যেখানে সেখানে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্পের আওতায় মোংলা-ঘষিয়াখালি নৌ চ্যানেলসহ রামপালে দাউদখালি, তেতুলিয়া, বেলাই ও বগুড়া নদীসহ অর্ধ শতাধিক খাল খনন করা হয়। এরমধ্যে দাউদখালি নদী থেকে অবৈভভাবে সবচেয়ে বেশি বালু উত্তোলন করা হয়। এই নদীতে ভাঙন দেখা দিলে গোবিন্দপুর আদর্শগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আদর্শগ্রাম জামে মসজিদসহ অসংখ্য বাড়িঘর ও বিভিন্ন স্থাপনা নদী গর্ভে চলে যেতে পারে।

স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকার দুই ব্যাক্তি কমিশন বাণিজ্যে গোবিন্দপুর এলাকায় ড্রেজার নিয়ন্ত্রণ করছে।

এ ব্যাপারে রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাধন চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, মাটির নীচ থেকে বালু উত্তোলন নিষিদ্ধ। সরকারি নির্দেশনা এসেছে আর কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা