kalerkantho

রবিবার । ৯ কার্তিক ১৪২৭। ২৫ অক্টোবর ২০২০। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বালু ভরাটকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ২৫

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০৪:৩০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বালু ভরাটকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত ২৫

নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অন্তত ২৫ জন আহতের খবর পাওয়া গেছে। রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জের ৭নং ওয়ার্ডের কদমতলী নয়াপাড়া নাভানা সিটির উত্তর পাশে একটি বিরোধপূর্ণ জমিতে বালু ভরাটকে কেন্দ্র করে স্থানীয় কাউন্সিলর আলী হোসেন আলা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ছাত্র দলের আহবায়ক রাকিবুর রহমান সাগর গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে।

আহতদের উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

আহতরা হলেন- নাসিক ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গ্রুপের হারুনুর রশিদ মোল্লা (৪৫), আ. জলিল হাওলাদার (৪২), নুরুল ইসলাম প্রধান (৩২), মোতালেব হোসেন বিদ্যুৎ (৫৫), জাহাঙ্গীর খান (৩৫), রাজন মিয়া (৩৫), তুহিন (২৮), লিমন শেখ (৪০)সহ আরো ৭/৮ জন এবং ছাত্রদল আহবায়ক রাকিবুর রহমান সাগর গ্রুপের রাকিবুর রহমান সাগর (২৯), মানিক মিয়া (৩৫) ও কামাল (৩০)সহ ৭/৮ জন।

রোজিনা বেগম বলেন, কাউন্সিলর আলার নেতৃত্বে তার লোকজন ওই জমিতে বালু ভরাট করছে শুনে আমার ছেলে রাকিবুর রহমান সাগর এবং আমাদের আত্মীয়-স্বজনসহ কয়েকজন লোক নিয়ে ঘটনাস্থলে গেলে তাদের ওপর আক্রমণ চালানো হয়। এতে আমার ছেলে সাগর ও আমাদের আত্মীয় মানিক ও কামালসহ আরো ৭/৮ জন গুরুতর আহত হয়। বর্তমানে তারা নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে নাসিক ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলী হোসেন আলা জানায়, আমি ওই জমিতে বালু ভরাট করার জন্য ড্রেজার দিয়ে বালু ফেলার ব্যবস্থা করি। ওইদিন খবর পেয়ে রেজিয়া বেগমের ছেলে সাগর ঘটনাস্থলে গিয়ে বাধা প্রদান করলে তাদেরকে কাগজ নিয়ে বসার জন্য বলি। কিন্তু যখন বালু ভরাটের কাজ চলছে তখন সাগরের নেতৃত্বে বিদেশি পিস্তল, দেশীয় ধারাল অস্ত্রশস্ত্র ও লাঠিসোটাসহ ২/৩ শ লোকজন নিয়ে আমার লোকজনের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমার অন্তত ১৫ জন লোক আহত হয়।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ফারুক জানায়, শুনেছি বিরোধপূর্ণ একটি জমি দখল করতে গেলে হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে এ বিষয়ে থানায় কেউ কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা