kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কাজিপুরে ৯ হাজার কৃষকের স্বপ্ন ডুবে গেছে যমুনার জলে

আবদুল জলিল, কাজিপুর   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:৩৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কাজিপুরে ৯ হাজার কৃষকের স্বপ্ন ডুবে গেছে যমুনার জলে

সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে যমুনার বানে নতুন করে ৯ হাজার কৃষকের স্বপ্ন তলিয়ে গেছে। সিরাজগঞ্জ পাউবোর তথ্যমতে গত ২৪ ঘণ্টায় উজান থেকে নেমে আসা ঢল ও বর্ষণে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। 

কাজিপুর উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক দিনের বন্যায় কাজিপুরে শুভগাছা, কাজিপুর, মাইজবাড়ি, খাসরাজবাড়ি, চরগিরিশ, তেকানী নাটুয়ারপাড়া, নিশ্চিন্তপুর, মনসুর নগর ও গান্ধাইল ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের উফসি ও স্থানীয় জাতের রোপা আমন ধান, মাসকলাই, মরিচ ও সবজি ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে। 

এ পর্যন্ত (১৯ সেপ্টেম্বর) ২০০ হেক্টর জমির উফসি জাতের রোপা আমন ধান তলিয়েছে। এতে ক্ষতি হয়েছে ১ হাজার ছয় শ কৃষকের। স্থানীয় জাতের আমন ধান ডুবে গেছে ৮২০ হেক্টর। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৬ হাজার ৪৪০ জন কৃষক। মাসকলাই ক্ষেত ডুবে গেছে ৫০ হেক্টর। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের সংখ্যা ৪০০ জন। মরিচের ক্ষেত ডুবেছে ২০ হেক্টর। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের সংখ্যা ৩৩০ জন। আর সবজি ও অন্যান্য ক্ষেত তলিয়েছে আরো ৪০ হেক্টর।  

এর পূর্বের জুলাই মাসের দুই দফা বন্যায় প্রথম সপ্তাহে আউশ ৬১০ হেক্টর, রোপা আমন বীজতলা ৩৫০ হেক্টর, ২২ জুলাই এর তৃতীয় সপ্তাহে রোপা আউশ ৬১০ হেক্টর রোপা আমন ৪৭০ হেক্টর এবং সর্বশেষ আগস্টের প্রথম সপ্তাহে রোপা আউশ ৬১০ হেক্টর, রোপা আমন ৪৭৫ হেক্টর জমির ফসলের ক্ষতি হয়েছে। 

কাজিপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, আবহাওয়ার হিসেব অনুযায়ী পানি আর বেশি বাড়বে না। দ্রুত পানি নেমে গেলে কিছু ধান টিকে থাকবে। ক্ষয়ক্ষতির হিসেব জেলা অফিসে পাঠানো হয়েছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা