kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চাকরির প্রলোভনে ১০ কোটি টাকা আত্মসাৎ, অভিযুক্তের দাবি 'ষড়যন্ত্র'

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৮:৩৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চাকরির প্রলোভনে ১০ কোটি টাকা আত্মসাৎ, অভিযুক্তের দাবি 'ষড়যন্ত্র'

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে মো. মিজানুর রহমান (মিজান মাস্টার) কর্তৃক চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শতাধিক বেকার যুবক-যুবতীদের কাছ থেকে প্রায় ১০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়াসহ জায়গা-জমি জোর জবর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেছেন ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসী। শনিবার বেলা ১১টার দিকে তাড়াশ প্রেস ক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

অভিযুক্ত মিজান মাস্টার উল্লাপাড়া উপজেলার ফাজিলনগর গ্রামের মৃত রোকনুজ্জামানের ছেলে ও উপজেলার ভাঙ্গুড়া মহিলা কলেজের গ্রন্থাগারিক। বর্তমানে তিনি তাড়াশ উপজেলার নওগাঁ বাজারের বাসিন্দা। 

ঘণ্টাব্যাপী চলা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে শতাধিক ভুক্তভোগীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন মো. শফিকুল ইসলাম, মাহমুদা পারভীন, মো. রেজাউল করীম, নজরুল ইসলাম, আল মাহমুদ খন্দকার প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রতারক মিজানুর রহমান ৭-৮ বছর ধরে সরকারি চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে তার নিজ এলাকাসহ পার্শ্ববর্তী কয়েকটি জেলার বেকার যুবক-যুবতীতের কাছ থেকে জনপ্রতি ১০ থেকে ১৫ লাখ টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছেন। চাকরি না হওয়ায় টাকা ফেরত চাইতে গেলে নানাভাবে ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকী দেন মিজান মাস্টার। আমরা অনেক ক্ষয়ক্ষতি করে টাকা দিয়ে এখন মানবেতর জীবন যাপন করছি।

এ সময় বক্তারা দুদকের তদন্তসহ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। এ ব্যাপারে মিজান মাস্টারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা ষড়যন্ত্র। এ ব্যাপারে তিনি কোনোভাবেই দায়ী নয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা