kalerkantho

সোমবার । ৩ কার্তিক ১৪২৭। ১৯ অক্টোবর ২০২০। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

নিখোঁজের তিনদিন পর নদীতে ভাসল শ্রমিকের লাশ

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৯:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিখোঁজের তিনদিন পর নদীতে ভাসল শ্রমিকের লাশ

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় পানিতে ডুবে নিখোঁজ হওয়ার তিনদিন পর নদী থেকে হারুন শিকদার (৩৯) নামে এক নৌ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করেছে মধ্যনগর থানা পুলিশ। বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার টুকের বাজারের সংলগ্ন গুমাই নামক নদী থেকে ওই শ্রমিকের ভাসমান লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত হারুন শিকদার (৩৯) পিরোজপুরের ইন্দুরখানি উপজেলার কলারন গ্রামের আবুল শিকদারের ছেলে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, হারুন শিকদার বাল্কহেড নৌকার একজন শ্রমিক। তিনি ওই নৌকায় রান্নার কাজ করতেন। গত সোমবার সকালে তাদের বাল্কহেড ওই নৌকাটি নেত্রকোনার দুর্গাপুর থেকে বালু ও পাথর বোঝাই করে গুমাই নদী দিয়ে ঢাকার উদেশ্যে রওয়ানা দেয়। পরে ওইদিন দুপুরে নৌকাটি  ধর্মপাশা উপজেলার মধ্যনগর থানাধীন গুমাই নদী লাগুয়া হলদির হাওওে এসে পৌঁছায়। এসময় নৌকার বাবুর্চি হারুন শিকদার হাওরের পানিতে নেমে গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে নিখোঁজ হন। পরে স্থানীয় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তার স্বজনেরা ঘটনাস্থলে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তারা হারুনকে উদ্ধার করতে পারেনি।

গতকাল বুধবার রাত আটটার দিকে উপজেলার টুকের বাজার সংলগ্ন গুমাই নদীর পানিতে একটি ভাসমান লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি পুলিশকে জানায়। পরে খবর পেয়ে মধ্যনগর থানা-পুলিশ ওইদিন রাত সাড়ে নয়টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে ওই লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

মধ্যনগর থানার ওসি মো. আবদুল্লাহ আল মামুন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পানিতে ডুবে নিখোঁজ হওয়া নৌকার বাবুর্চি হারুন শিকদারের স্বজনেরা থানায় এসে লাশটি সনাক্ত করেন। এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়েরের পর বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য হারুন শিকদারের মৃতদেহ সুনামগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা