kalerkantho

শুক্রবার। ১৭ আশ্বিন ১৪২৭। ২ অক্টোবর ২০২০। ১৪ সফর ১৪৪২

সরিষাবাড়ীতে তথ্য প্রতিমন্ত্রী

‘পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে স্বাধীন দেশ উপহার দিয়ে গেছেন বঙ্গবন্ধু’

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি   

১৫ আগস্ট, ২০২০ ১৩:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে স্বাধীন দেশ উপহার দিয়ে গেছেন বঙ্গবন্ধু’

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে জাতীয় শোক দিবসে আলোচনা সভায় বক্তব্য দিচ্ছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার মুরাদ হাসান

তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার মুরাদ হাসান বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বলেই বাংলাদেশ আজ স্বাধীন। জাতির পিতা পরাধীনতার শৃঙ্খল ভেঙে এদেশের মানুষকে একটি স্বাধীন বাংলাদেশ উপহার দিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে ক্ষুধা-দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়াই হোক শোক দিবসের অঙ্গীকার।

আজ শনিবার সকালে জাতীয় শোক দিবসে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকীতে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা চত্বরে আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাক্তার মুরাদ হাসান এমপি।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু পেরেছিলেন এই বাংলার মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে। কিন্তু তাকে বাঁচতে দেয়নি এদেশে লুকিয়ে থাকা একদল বিপথগামী সেনাসদস্য। জাতীর পিতার দোষ কি ছিল? তিনি এই বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছেন, এটাই তার দোষ। স্বাধীনতা বিরোধীরা জাতির পিতাকে হত্যা করে ক্ষমতায় এসে ওইসব খুনিদের পুরস্কৃত করেছে। এই বাংলাদেশকে আবারো পাকিস্তানের ঘাঁটি বানাতে চেয়েছিল। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের দলকে এদেশের মানুষ ভোট দিয়ে আবারো দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দেয়। জাতির পিতার খুনিদের বিচার কার্যক্রম শেষ করে খুনিদের অনেকের ফাঁসি দেওয়া হয়েছে।

বিদেশে পলাতক বাকী খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় দ্রুত বাস্তবায়ন করা হবে। জাতির পিতার খুনির দোসর ওই স্বাধীনতাবিরোধী জামাত-বিএনপিকে বাংলাদেশের মানুষ মাথা উঁচু করে আর দাঁড়াতে দেবে না বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

প্রতিমন্ত্রী এর আগে উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় ও উপজেলা চত্বরে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মোনাজাত করেন।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব উদ্দিন আহমদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কালাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ, সহসভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এম এ লতিফ, মনির উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম, যুবলীগ নেতা সাখাওয়াতুল আলম মুকুলসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা