kalerkantho

শুক্রবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৭ সফর ১৪৪২

সাভারে শিশু ধর্ষণ! কথিত নানা-মামা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৩ আগস্ট, ২০২০ ২০:৪১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাভারে শিশু ধর্ষণ! কথিত নানা-মামা গ্রেপ্তার

সাভারে আট বছরের কন্যা শিশু ধর্ষণের অভিযোগে এক বৃদ্ধ ও অপর এক কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে সাভার সদর ইউনিয়নের চাপাইন এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। আটককৃতরা হলো- নাটোর জেলার সিংড়া থানার মৃত মাদু প্রামানিকের ছেলে আতাহার আলী (৬০) ও অপরজন দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী থানার রসুল উদ্দিন মন্ডলের ১৬ বছর বয়সী ছেলে। বর্তমানে উভয়েই সাভারের চাপাইন এলাকায় বসবাস করে আসছিল।

পুলিশ জানায়, চাপাইন এলাকার নবনির্মিত পাঁচতলা ভবনের নিচে একটি কক্ষে কেয়ারটেকার হিসেবে থাকতেন বৃদ্ধ আতাহার আলী। প্রতিবেশী আট বছরের একটি শিশু তাকে নানা বলে ডাকে। সেই সুবাদে শিশুটিকে ফুসলিয়ে সেই কক্ষে নিয়ে প্রায়ই ধর্ষণ করতেন আতাহার। গত ২৭ জুলাই থেকে বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণ করে আসছিলেন। অপরদিকে, আটককৃত ওই কিশোর শিশুটিকে কৌশলে পার্শ্ববর্তী অপর একটি ভবনে নিয়ে গত ১০ আগস্ট ধর্ষণ করে। পরের দিনও একই ভাবে সে শিশুটিকে ধর্ষণ করে। শিশুটি সোহাগকে মামা বলে ডাকতো। পরে ভূক্তভোগী শিশুটি তার নিজের খালাতো বোনকে ঘটনাগুলো খুলে বলে। খালাতো বোন শিশুর বাবাকে জানায়। পরে বুধবার ভূক্তভোগী শিশুর বাবা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তৌহিদ জানান, ভূক্তভোগী শিশুরটির বাবা ও মা দুইজনই কর্মজীবি। ফলে কাজের জন্য তারা সকালে বের হয়ে যেত। এই সুযোগে প্রতিবেশী কথিত নানা ও মামা শিশুটির সঙ্গে এই ঘৃণিত কাজ করে আসছিলো। যেহেতু ব্যক্তি ও ঘটনাস্থল আলাদা, তাই তাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের আলাদা দুটি মামলা দায়ের হয়েছে।

অন্যদিকে সাভারের কমলাপুরের ভবানীপুর এলাকায় একজন গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করা অভিযোগে দেবর নোয়াব আলী (২৫) নামের এক যুবককে বুধবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 
উভয় ঘটনায় ধর্ষণকারীদের নামে সাভার মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।

ধর্ষণের শিকার শিশুটিকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা