kalerkantho

রবিবার। ৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ২ সফর ১৪৪২

নিখোঁজ কলেজছাত্র

হাওরে বেড়াতে গিয়ে পানিতে ডুবে কলেজশিক্ষকের মৃত্যু

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি    

৯ আগস্ট, ২০২০ ১০:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাওরে বেড়াতে গিয়ে পানিতে ডুবে কলেজশিক্ষকের মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জের হাওরে বেড়াতে গিয়ে পানিতে ডুবে মো. হাদিউর রহমান রুবেল (৩৫) নামে এক কলেজশিক্ষক মারা গেছেন। এসময় একরামুল ইসলাম (২০) নামে আরেক কলেজছাত্র নিখোঁজ হন। চামড়াঘাট নৌ-পুলিশ কলেজশিক্ষকের মরদেহ উদ্ধার করলেও কলেজছাত্রকে খুঁজে পায়নি। শনিবার সন্ধ্যার দিকে জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার হাসনপুর সেতুর পাশের হাওরে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। 

নিহত হাদিউর রহমান রুবেল কটিয়াদী উপজেলার চরপক্কিয়া গ্রামের শামসুল ইসলামের ছেলে। তিনি টাঙ্গাইলের সখীপুর সরকারি মহিলা কলেজের প্রভাষক ছিলেন। নিখোঁজ একরামুল ইসলাম একই গ্রামের কাইমুল ইসলামের ছেলে। তিনি কিশোরগঞ্জের গুরুদয়াল সরকারি কলেজের ছাত্র। 

চামটাঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মো. নাজমুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, রাত হয়ে যাওয়ায় উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়েছিল। আজ রবিবার সকাল থেকে ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরিদল নিখোঁজ কলেজছাত্রের সন্ধান করছে। তবে এখনও একরামকে খুঁজে পায়নি ডুবুরিরা। তিনি জানান, কলেজশিক্ষক হাদিউর ও কলেজছাত্র একরামুল হাওরে বেড়াতে আসেন। তাঁরা করিমগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী হাসনপুর সেতুর পাশের হাওরে গোসল করতে নামেন। তবে হাওরের ঢেউ ও স্রোতের টানে তাঁরা পানিতে নিখোঁজ হন। খবর পেয়ে সন্ধ্যার পরে চামটা ঘাট নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ও করিমগঞ্জ থানার পুলিশ সদস্যরা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে হাদিউর রহমান রুবেলকে হাওরের পানিতে থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। তবে একরামকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায়নি। 

করিমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মমিনুল ইসলাম বলেন, কলেজছাত্রের সন্ধানে কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরিরা হাওরে আজ সকাল থেকে নিখোঁজ কলেজছাত্রের সন্ধান করছে। কলেজ শিক্ষকের মৃত্যুর বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা