kalerkantho

শুক্রবার। ১৭ আশ্বিন ১৪২৭। ২ অক্টোবর ২০২০। ১৪ সফর ১৪৪২

বন্ধ ঘরে মা দেখলেন মেয়ের ঝুলন্ত লাশ

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৭ আগস্ট, ২০২০ ১৫:১৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বন্ধ ঘরে মা দেখলেন মেয়ের ঝুলন্ত লাশ

প্রতীকী ছবি

নবীগঞ্জ পৌরসভার শিবপাশা (শ্যামলী) আবাসিক এলাকায় ফাঁস দিয়ে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে। আজ শুক্রবার (৭ আগস্ট) সকাল ৯টায় নবীগঞ্জ পৌরসভার শ্যামলী আবাসিক এলাকায় মেয়ের নিজ বাড়িতে আত্মহত্যার এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ওই এলাকার মঙ্গল দাশের মেয়ে লিপি রাণী দাশকে (১৩) তার মা ঘরে রেখে অন্যের বাড়িতে কাজ করতে যান। কাজ শেষে বাড়ি ফিরে দেখেন দরজা ভেতর থেকে বন্ধ। ধাক্কাধাক্কির পর জানালা দিয়ে লিপিকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে দরজা ভেঙে লিপির মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

লিপির মা বলেন, প্রায় এক বছর ধরে আজমেরীগঞ্জ উপজেলার রণজিত সরকার (১৭) নামের এক ছেলের সঙ্গে সিলেটের এক হাসপাতালে দেখা হয় লিপির। সেখান থেকে পরিচয় এবং সেই সূত্রে দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পরে আমরা জানতে পেয়ে নিষেধ করার পরও তারা গোপনে তাদের সম্পর্ক চালিয়ে যায়। আমার ধারণা, তাদের মধ্যে কোনো বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য চলছিল। এ জন্য গতকালও আমার মেয়ে বলছিল, কিছু ভালো লাগছে না। আমি অন্যের বাসায় কাজ করি। প্রতিদিনের মতো আজকেও সকালে আমি আমার মেয়েকে রান্নার কাজ সেরে রাখতে বলি। কিন্তু কাজ শেষে ফিরে এসে এই অবস্থা দেখতে পাই। আমার চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসেন। 

ওই এলাকার বাসিন্দারা জানান, তাদের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। দুজন পালানোর চেষ্টাও করেছিল। তখন তাদের শ্যামলী এলাকা থেকেই এলাকাবাসী ধরে ফেলে। বিয়ের জন্য তাদের প্রাপ্তবয়স্ক হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলা হয়েছিল। তার মধ্যে আজ হঠাৎ সকালে এ রকম ঘটনা ঘটে গেল। 

খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার সাব-ইন্সেপেক্টর অমিতাভ তালুকদার ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ হাসপাতাল মর্গে পাঠান। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিষয়টি নিশ্চিত করেন নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আজিজুর রহমান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা