kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

নরসিংদীর মেঘনায় নৌকা ভ্রমণে মারামারি, স্কুলছাত্র নিহত

নরসিংদী প্রতিনিধি   

৫ আগস্ট, ২০২০ ০৯:০৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীর মেঘনায় নৌকা ভ্রমণে মারামারি, স্কুলছাত্র নিহত

নরসিংদীতে ঈদ উপলক্ষে মেঘনা নদীতে নৌভ্রমণে গিয়ে দুই পক্ষের মারামারিতে অনিক মিয়া (১৫) নামে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সদর উপজেলার নাগরিয়াকান্দি এলাকায় শেখ হাসিনা সেতুর নিচে এই ঘটনা ঘটে। নিহত স্কুলছাত্র অনিক সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের কালাই গোবিন্দপুর এলাকার মো. শহিদুল্লাহ মিয়ার ছেলে। সে সাটিরপাড়া কালিকুমার উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

শহিদুল্লাহ মিয়া সপরিবারে নরসিংদী শহরের সাটিরপাড়া মহল্লায় ভাড়া বাড়িতে বসবাস করেন। এঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

নিহতের মামা সবুজ মিয়া জানান, ঈদ উপলক্ষে মেঘনা নদীতে নৌকা ভ্রমণে যায় অনিকসহ তার অন্যান্য সঙ্গীরা। ফেরার পথে অপর একটি নৌকার লোকজনের সঙ্গে কাদা ছোড়াছুড়ি নিয়ে ঝগড়ার সৃষ্টি হয়। দুটি নৌকা নাগরিয়াকান্দিস্থ শেখ হাসিনা সেতুর নিচে এসে পৌঁছালে দুই পক্ষই লাঠিসোঁটা নিয়ে মারামারি শুরু করে। এসময় মাথায় আঘাত পেয়ে নৌকা থেকে পানিতে পড়ে ডুবে নিখোঁজ হয় স্কুলছাত্র অনিক। উপস্থিত লোকজন প্রায় ৩০ মিনিট খোঁজাখুঁজির পর তাকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে সদর থানা পুলিশ মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

স্থানীয়রা জানান, গত রমজানে নজরপুর ইউনিয়নের কালাই গোবিন্দপুর ও দড়িনবীপুরা এলাকার কিশোর বয়সী দুই গ্রুপের মধ্যে ঝগড়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গলবার সামান্য বিষয় নিয়ে মারামারি জড়িয়ে পড়ে।

এদিকে আনন্দ ভ্রমণের সময় দুই নৌকার লোকজনের মারামারির একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। ইয়াসিন সরকার নামের এক আইডি থেকে প্রকাশিত সেই ভিডিওতে দেখা যায় দুই পক্ষ লাঠি, বাঁশ ও কাঠ নিয়ে মারামারি করছে। সেসময় নদীতে এক কিশোরের মাথায় সজোরে কাঠ দিয়ে আঘাত করতে দেখা যায় একজনকে।

আজ বুধবার সকালে নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার দত্ত চৌধুরী জানিয়েছেন, নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মৃত্যুর কারণ ও পারিপার্শ্বিক ঘটনা বিশ্লেষণ করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা