kalerkantho

রবিবার। ৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ২ সফর ১৪৪২

পুলিশ দেখে দৌঁড়ে নদীতে ঝাঁপ! পরদিন লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

৩ আগস্ট, ২০২০ ১৮:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুলিশ দেখে দৌঁড়ে নদীতে ঝাঁপ! পরদিন লাশ

বগুড়ার মহাস্থানে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নদীতে ঝাঁপ দেওয়া মোস্তাফিজার রহমান মাসুম (৩৫) নামের এক যুবকের ভাসমান লাশ সোমবার দুপুরে করতোয়া নদী থেকে উদ্ধার করেছে স্থানীয় লোকজন। বিচারের দাবীতে লাশ নিয়ে এলাকাবাসী ঢাকা-বগুড়া মহাসড়ক অবরোধ করে। নিহত মাসুম মহাস্থান গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য বজলুর রহমানের ছেলে।

সোমবার বিকেলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। পরে পুলিশের সহায়তায় স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনগন অবরোধ তুলে নিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

এদিকে এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গতকাল রবিবার বিকাল ৬টায় মহাস্থান প্রতাবাজু গ্রামে সাদা পোশাকে পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালানোর সময় মহাস্থান বারিদার পাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য বজলুর রহমানের পুত্র মোস্তাফিজার রহমান মাসুম মিয়া পুলিশকে দেখে ভয়ে দৌঁড় দেয়। এসময় পুলিশও তাকে তাড়া করে। এ সময় মাসুম আত্মরক্ষার্থে করতোয়া নদীতে ঝাঁপ দিয়ে  নিঁখোজ হয়। এরপর পুলিশ তাকে না পেয়ে ফিরে চলে যায়। পরে এলাকাবাসী তাঁকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। খবর পেয়ে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ১ ঘণ্টার উদ্ধারের তৎপরতা চালিয়ে তারাও তাকে না পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়। কোন পুলিশ তাকে ধরতে গিয়েছিল এলাকাবাসী তা নিশ্চিত করতে পারেনি।

এবিষয়ে ফায়ার সার্ভিসের অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হামিদুল জানায়, খবর পেয়ে একটি টিম ঘটনাস্থলে অনেক খোঁজাখুঁজি করেছে। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। তারা আরও জানান, তিনি যদি সত্যি নদীতে পড়ে নিখোঁজ হয় তাহলে নদীতে অনেক স্রোতের কারণে যেখানে ঝাঁপ দিয়েছে সেখানে পাওয়া দুস্কর। তিনি আরও জানান, যেহেতু সন্ধ্যার সময় সে নদী সাঁতরিয়ে কোথাও আত্মগোপনও করতে পারে।

এবিষয়ে শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান জানান, মহাস্থানের সন্ধ্যার পূর্বমুহূর্ত কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে মাদকসহ আটক করেছে পুলিশ। সেখানে পুলিশকে দেখে মোস্তাফিজার রহমান মাসুম নামের এক মাদকসেবী দৌঁড় দিয়ে নদীতে ঝাঁপ দিয়েছে এটা শুনেছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা