kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৩ আগস্ট ২০২০ । ২২ জিলহজ ১৪৪১

রাষ্ট্রায়াত্ত্ব পাটকল বেসরকারি খাতে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত বাতিল দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা   

১৬ জুলাই, ২০২০ ১৮:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাষ্ট্রায়াত্ত্ব পাটকল বেসরকারি খাতে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত বাতিল দাবি

রাষ্ট্রায়াত্ত্ব পাটকলগুলো বেসরকারিখাতে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবি জানিয়েছে খুলনার সম্মিলিত নাগরিক পরিষদ। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় সিপিবি খুলনা কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ দাবি করা হয়। 

সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক অ্যডভোকেট কুদরত-এ-খুদা। এ সময়ে নাগরিক পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যডভোকেট আ ফ ম মহসিন, সিপিবি নেতা এস এ রশিদ, বাসদ নেতা জনার্দন দত্ত নান্টু, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি নেতা মোজাম্মেল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, পাট আমাদের হাজার বছরের গর্ব ও ঐতিহ্য। এর সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও অপ্রত্যক্ষভাবে তিন কোটি মানুষ জড়িয়ে আছে। স্বাধীনতার আন্দোলনে পাটশ্রমিকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। স্বাধীনতা পরবর্তীকালে বঙ্গবন্ধুর সরকার পাটশিল্প রাষ্ট্রায়াত্ত্ব করেন। ১৯৮২ সাল হতে পাটকল বিরাষ্ট্রীয়করণ শুরু হয়। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ২০০১ সালে আদমজী জুটমিল বন্ধ ঘোষণা করলে কঠোর সমালোচনার মুখে পড়ে।

বলা হচ্ছে, পাটখাত ৪৪ বছরে ১০ হাজার ৬৭৪ কোটি টাকা লোকসান দিয়েছে; কিন্তু এই একই সময়ে ৪৫ হাজার কোটি টাকা ঋণ মওকুফ করা হয়েছে। ক্যাপাসিটি চার্জের নামে বিদ্যুতকেন্দ্র বসিয়ে রেখে গত দশ বছরে ৬২ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দেয়া হয়েছে।

নাগরিক নেতারা বলেন, ১২শ’ কোটি টাকা খরচ করে মিলগুলো আধুনিকীকরণ করা সম্ভব। মিলগুলো পরিচালনায় বিজেএমসি’র কাঠামো পরিবর্তন করে দক্ষ ব্যবস্থাপনা কাঠামো তৈরি, মাথাভারি প্রশাসন কমানো, পাটশিল্পে দুর্নীতি দূর করা, পাটপণ্যের বহুমূখীকরণ করলে পাটখাত লাভজনক করা সম্ভব। নেতৃবৃন্দ গ্রেফতারকৃত দু’জন পাট শ্রমিককে অবিলম্বে মুক্তি দেয়ার দাবি জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা