kalerkantho

বুধবার । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭। ১২ আগস্ট ২০২০ । ২১ জিলহজ ১৪৪১

এ পর্যন্ত ৩৮ লাশ দাফন করেছেন মর্তুজা ও তার দল

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৩ জুলাই, ২০২০ ১৯:৫০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এ পর্যন্ত ৩৮ লাশ দাফন করেছেন মর্তুজা ও তার দল

কতার প্রবাসী মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মেদিনী মন্ডল গ্রামের কামাল খানের লাশ দাফন করলেন মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে সুপরিচিত লৌহজং উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মর্তুজা খান ও তার দল।

আজ সোমবার বেলা ১১টায় মাওয়া চৌরাস্তা সংলগ্ন কুমারভোগ কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। এর পূর্বে কামাল খান গত ৮দিন আগে কাতারে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান। সোমবার ভোরে তার লাশ কাতার এয়ারলাইন্সযোগে ঢাকায় এসে পৌঁছে। পরে গ্রামের বাড়িতে মর্তুজার ও তার দল মরহুমের দাফন সম্পন্ন করেন। কামাল খান ছাড়াও সোমবার লৌহজংয়ে কারাপাশ গ্রামের করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া হুমায়ূন কবীর খানের লাশও দাফন করে মর্তুজার ও তার দল।

মর্তুজা খান বলেন, দেশে মহামারী করোনা শুরু হলে নিজের বাবা-মা, ভাইবোন আত্মীয় স্বজনের লাশই অনেকে লাফন করতে এগিয়ে আসেনি। ঠিক সেই সময়ে এবা গ্রুপের চেয়ারম্যান সাজ্জাদুর রহমান শিপন মৃধার অনুপ্রেরণায় আমিসহ সাতঘড়িয়া গ্রামের একদল স্বেচ্ছাসেবী এগিয়ে আসেন। আমরা উদ্যোগে নেই করোনা রোগীদের দাফন কাফন করার। এ সময় সাজ্জাদুর রহমান শিপন মৃধা আমাদের পিপিই, গামবোট, মাক্সসহ সকল ধরণের করোনা প্রটেকসনের উপকরণ দিয়ে সহযোগিতা করেন। এমনকি শুধু করোনা নয়, যদি কোনো ব্যক্তি মারা যাওয়ার পর তার দাফনের কাজ সম্পন্ন করতে কোনো আর্থিক সমস্যা হয়, তবে শিপন ভাই ও আমরা এর দায়িত্ব নিয়ে থাকি। এমনকি দূর থেকে লাশ আনতে যদি কোনো সমস্যা হয়, তাদেরও আমরা অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে সহযোগিতা করে থাকি। আমরা শুধু করোনারোগীর লাশই নয়, সাধারণ মৃতব্যক্তিদের লাশও দাফন করে চলেছি। করোনাকারীণ সময়ে এ পর্যন্ত আমরা আজকের (সোমবারের) ২টি লাশ সহ মোট ৩৮টি লাশ দাফন সম্পন্ন করেছি।

তিনি আরো জানান, আমরা শুধু আমাদের এলাকার সাতঘড়িয়া কবরস্থানেই লাশ দাফন করছি না, উপজেলার যেখান থেকেই করোনারোগীর লাশের সংবাদ পাই আমরা সেখানে গিয়ে লাশ দাফন করে আসি। আজ (সোমবার) খবর পেয়ে মেদিনী মন্ডলে গিয়ে প্রবাসী কামাল খানের লাশ দাফন করে আসলাম।

উল্লেখ্য, মর্তুজা ও তার দল করোনাকালীন সময়ে করোনারোগীদের মৃতদেহ দাফন করে এলাকায় মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে সুপরিচিত হয়ে উঠেছেন। তাদের এ কাজ এলাকায় বেশ প্রশংসিত হয়েছে। এলাকাবসীর মুখে মুখে এখন তাদের প্রশংসা শুনা যায়। রজিনীতি করতে হলে যুবলীগের এই নেতা মর্তুজাদের মতোই হওয়া উচিৎ আগে। রাজনীতির অঙ্গীকার হওয়া উচিৎ মানবসেবা। তবেই দেশের মানুষ উপকৃত হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা