kalerkantho

বুধবার । ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭। ১২ আগস্ট ২০২০ । ২১ জিলহজ ১৪৪১

গফরগাঁওয়ে ভুয়া সনদে ভাতা উত্তোলন

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি    

১৩ জুলাই, ২০২০ ১৮:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গফরগাঁওয়ে ভুয়া সনদে ভাতা উত্তোলন

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে ভুয়া ডাক্তারি সনদ দাখিল করে মাতৃত্বকালীন ভাতা উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে বিলকিস বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূর বিরুদ্ধে। আজ সোমবার দুপুরে উপজেলার শিববাড়ি বাজারস্থ গফরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদে টাকা উত্তোলনের সময় বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে স্থানীয় লোকজনের সমালোচনা ও উত্তেজানার মুখে টাকা নিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন ওই গৃহবধূ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার গফরগাঁও ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের উথুরী গ্রামের রফিক মিয়ার স্ত্রী বিলকিস বেগম এক বছর পূর্বে গর্ভবতীর ভুয়া ডাক্তারী সনদ দাখিল করে ইউপি সদস্য আব্দুস ছোবান কালা মিয়ার মাধ্যমে মাতৃত্ব ভাতার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করেন। সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদে মাতৃত্ব ভাতার টাকা উত্তোলনের সময় স্থানীয় লোকজন প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। পরে বিলকিস বেগম টাকা নিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করেন। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, বিলকিস গর্ভবতী নন বা তার ছোট বাচ্চাও নেই। ৭ বছর বয়সের একটি সন্তান রয়েছে তার। ইউপি সদস্য টাকার বিনিময়ে এ কাজ করেছেন।

সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য আব্দুস ছোবান কালা মিয়ার কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এক বছর আগে বিলকিস বেগমের অন্তঃসত্ত্বা ডাক্তারি সনদ দেখে তালিকায় নাম তুলেছিলাম। ডাক্তারি সনদ যাচাই করা হয়নি। 

ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল আলম খোকন ফোন রিসিভ না করায় এ ব্যাপারে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। অভিযুক্ত বিলকিস বেগমের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা খালেদা বেগম বলেন, খবর পেয়ে আমি ইউপি সদস্যকে বিলকিস বেগমের কাছ থেকে টাকা উদ্ধারের নির্দেশ দিয়েছি। টাকা উদ্ধার করে যাছাই বাছাইয়ের মাধ্যমে অন্য একজন প্রকৃত ভাতাভোগীকে দেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা